fbpx

পিএসসির মাধ্যমে রাজ্য সরকারের ক্লার্ক নিয়োগ পরীক্ষার আবেদন শুরু

ক্লার্কশিপ পরীক্ষা ২০১৯-এর মাধ্যমে রাজ্য সরকারের সমস্ত সেক্রেটারিয়েট, ডিরেক্টরেট, জেলা অফিস ও আঞ্চলিক অফিসগুলির ক্ল্যারিক্যাল শূন্যপদগুলিতে নিয়োগের জন্য অনলাইন দরখাস্ত গ্রহণ শুরু আজ বেলা ১১.৩০ মিনিট থেকে। গতকাল আমাদের পোর্টালে খবরটি সংক্ষিপ্তভাবে জানানো হয়েছিল। প্রার্থী বাছাই করবে ওয়েস্ট বেঙ্গল পাবলিক সার্ভিস কমিশন। বিজ্ঞপ্তি নম্বর: ০৫/২০১৯। নিচের যোগ্যতার যে-কোনো ভারতীয়রা আবেদন করতে পারবেন, তবে সংরক্ষণের সুবিধা পাবেন কেবল এরাজ্যের প্রার্থীরা। শূন্যপদের হিসাব এখনো পাওয়া যায়নি, তবে যেহেতু প্রায় এক যুগ এই পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি ও আবেদন গ্রহণ বন্ধ ছিল, শূন্যপদ অন্তত হাজার দুয়েক হবে আশা করা যায়।

পদ সংরক্ষণের সুবিধা পাবেন রাজ্যের তপশিলি প্রভৃতি প্রার্থীরা। কৃতী খেলোয়াড়দের জন্যও পদ সংরক্ষণ থাকবে (আন্তর্জাতিক/জাতীয়/আন্তঃ বিশ্ববিদ্যালয়/বিদ্যালয় স্তরের জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ এগুলির কোনোটিতে— অ্যাথলেটিক্স (ট্র্যাক, ফিল্ড সহ), ব্যাডমিন্টন, বাস্কেট বল, ক্রিকেট, ফুটবল, হকি, সাঁতার, টেবিল টেনিস, ভলিবল, টেনিস, ভারোত্তলন, কুস্তি, বক্সিং, সাইক্লিং, জিমন্যাস্টিক্স, জুডো, রাইফেল শুটিং, কাবাডি, খো-খো)।

বেতনক্রম: পে ব্যান্ড টু অনুযায়ী মূল বেতন ৫৪০০-২৫২০০ টাকা, গ্রেড পে ২৬০০ টাকা। সঙ্গে অন্যান্য ভাতা।

বয়সসীমা: ১ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখের হিসেবে বয়স হতে হবে ১৮-৪০ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ২ জানুয়ারি ১৯৭৯ থেকে ১ জানুয়ারি ২০০১ সালের মধ্যে)। পশ্চিমবঙ্গের সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

যোগ্যতা: ওয়েস্ট বেঙ্গল বোর্ড অব সেকেন্ডারি এডুকেশনের মাধ্যমিক বা সমতুল সঙ্গে কম্পিউটার অপারেশনের প্রাথমিক জ্ঞান থাকতে হবে ও কম্পিউটারে ইংরেজিতে প্রতি মিনিটে ২০ শব্দের গতিতে বা বাংলায় প্রতি মিনিটে ১০ শব্দের গতিতে টাইপিং দক্ষতা। বাংলা ভাষা লিখতে-পড়তে-বলতে জানতে হবে, নেপালিভাষীদের ক্ষেত্রে এই শর্ত প্রযোজ্য নয়। কম্পিউটারের প্রাথমিক জ্ঞান ও টাইপিংয়ের দক্ষতা যাচাই হবে পার্ট-ওয়ান ও টু পাশ করলে পর।

পরীক্ষার ধরন: পরীক্ষা হবে দুটি পর্যায়ে। পার্ট ওয়ানে অবজেক্টিভ টাইপের প্রশ্ন থাকবে ইংলিশ (৩০ নম্বর), জেনারেল স্টাডিজ (৪০ নম্বর), অ্যারিথমেটিকের ওপর (৩০ নম্বর)। মোট ১০০টি প্রশ্ন থাকবে, প্রতিটি প্রশ্নের মান ১। সময় এক ঘণ্টা তিরিশ মিনিট। পার্ট টুতে দুটি গ্রুপ থাকবে। গ্রুপ এ-তে ইংলিশ ও গ্রুপ-বি-তে বাংলা/ হিন্দি/ উর্দু/ নেপালি/ সাঁওতালি। পরীক্ষার সময় এক ঘণ্টা।

প্রিলিমিনারি পরীক্ষাকেন্দ্র, সেন্টার কোড নম্বর সহ: উত্তর কলকাতা (০১)। দক্ষিণ কলকাতা (০২)। বারুইপুর (০৩)। ডায়মন্ড হারবার (০৪)। ব্যারাকপুর (০৫)। বারাসাত (০৬)। কৃষ্ণনগর (০৭)। হাওড়া (০৮)। চুঁচুড়া (০৯)। বর্ধমান (১০)। আসানসোল (১১), পুরুলিয়া (১২)। মেদিনীপুর (১৩)। তমলুক (১৪)। ঝড়গ্রাম (১৫)। বাঁকুড়া (১৭), সিউড়ি (১৭)। বহরমপুর (১৮)। মালদা (১৯)। বালুরঘাট (২০)। রায়গঞ্জ (২১)। জলপাইগুড়ি (২২)। আলিপুরদুয়ার (২৩)। কোচবিহার (২৪)। শিলিগুড়ি (২৫)। কালিম্পং (২৬)। দার্জিলিং (২৭)।

আবেদনের ফি: ১১০ টাকা সঙ্গে সার্ভিস চার্জ। অনলাইনে ডেবিট কার্ড/ ক্রেডিট কার্ড/ নেট ব্যাঙ্কিং বা অফলাইনে চালানের মাধ্যমে ব্যাঙ্কের কাউন্টারে ফি দেওয়া যাবে। এই রাজ্যের তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ফি দিতে হবে না। অনলাইনে আবেদনের ফি দেওয়া যাবে ২৫ মার্চ ২০১৯ তারিখ রাত ১২টা পর্যন্ত। অফলাইনে আবেদনের ফি দেওয়া যাবে ২৬ মার্চ ২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।

আবেদনের পদ্ধতি: www.pscwbapplication.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করার আগে ওয়েবসাইটে গিয়ে ‘ওয়ান টাইম এনরোলমেন্ট’ করতে হবে। এই এনরোলমেন্ট করার পদ্ধতি সম্পর্কে আমরা ইতিমধ্যেই আলোচনা করেছি (http://jibikadishari.co.in/?p=7237)। যাঁরা আগে ‘ওয়ান টাইম এনরোলমেন্ট’ করেছেন তাঁদের পুনরায় করতে হবে না। অনলাইন আবেদন করা যাবে ২৫ মার্চ ২০১৯ তারিখ রাত ১২টা পর্যন্ত। আবেদন সংক্রান্ত কোনো জিজ্ঞাসা থাকলে যে-কোনো কাজের দিন সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৪টের মধ্যে ফোন করতে পারেন ০৩৩ ২৪১৯ ৮১৮৫ নম্বরে। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইট থেকে।

পিএসসির ক্লার্কশিপ ২০১৯ পরীক্ষার সিলেবাস : http://jibikadishari.co.in/?p=10032

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *