fbpx

কম্বাইন্ড মেডিকেল সার্ভিসেস পরীক্ষার মাধ্যমে ৯৬২ ডাক্তার

ইউনিয়ন পাবলিক সার্ভিস কমিশনের কম্বাইন্ড মেডিকেল সার্ভিসেস এগজামিনেশন-২০১৯-এর মাধ্যমে ৯৬২ জন ডাক্তার নিয়োগ করা হবে। এই পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি নম্বর 08/2019-CMS তারিখ ১০.০৪.২০১৯। আবেদন করা যাবে শুধুমাত্র অনলাইনে, ৬ মে-র মধ্যে। নিচের যোগ্যতার যে-কোনো ভারতীয়রা আবেদন করতে পারবেন। একবার আবেদন করলে তা প্রত্যাহারও করা যাবে ১৩-২০ মের মধ্যে, যদিও তার জন্য ফি ফেরত দেওয়া হবে না।

শূন্যপদের বিন্যাস: অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিভিশনাল মেডিকেল অফিসার (রেলওয়ে): ৩০০। অ্যাসিস্ট্যান্ট মেডিকেল অফিসার (ইন্ডিয়ান অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরি হেলথ সার্ভিসেস): ৪৬। জুনিয়র স্কেল (সেন্ট্রাল হেলথ সার্ভিসেস): ২৫০। নিউ দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিলে জেনারেল ডিউটি মেডিকেল অফিসার ৭। পূর্ব দিল্লি, উত্তর দিল্লি ও দক্ষিণ দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনে জেনারেল ডিউটি মেডিকেল গ্রেড-টু ৩৬২। এসবের মধ্যে প্রয়োজনীয় সক্ষমতাসম্পন্ন শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্যও কিছু পদ সংরক্ষিত আছে, বিশদ জানা যাবে নিচের নিচের ওয়েবসাইটে, বিজ্ঞপ্তিতে।

যোগ্যতা: মেডিকেল কাউন্সিলের নিয়ম অনুযায়ী বৈধ স্নাতক ডিগ্রি (ইন্টার্নশিপ সহ) বা সমতুল। যাঁরা ফাইনাল পরীক্ষা দিয়েছেন বা দেবেন তাঁরাও শর্তসাপেক্ষে আবেদন করতে পারবেন। কম্বাইন্ড মেডিকেল এগজামিনেশন-২০১৯ গাইডলাইন অনুযায়ী প্রার্থীর শারীরিক মান থাকতে হবে।

বয়সসীমা: ১ আগস্ট ২০১৯ তারিখের হিসাবে বয়স হতে হবে ৩২ বছরের মধ্যে। অর্থাৎ  জন্মতারিখ ২ আগস্ট ১৯৮৭ তারিখে বা তার পরে। তপশিলি, ওবিসি, শারীরিক প্রতিবন্ধী, প্রাক্তন সমরকর্মী, বিবাহ বিচ্ছিনা, বিধবা প্রার্থী ও মেধাবী খেলোয়াড়রা নিয়ম অনুযায়ী যথাযথ ক্ষেত্রে ছাড় পাবেন।

প্রার্থী বাছাই: প্রথম ধাপে কম্পিউটার নির্ভর লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে ২১ জুলাই ২০১৯ তারিখে। দুটি পেপার থাকবে। প্রতিটি পেপারের মান ২৫০। প্রতি পেপারে সময় ২ ঘণ্টা। প্রথম পেপারে ১২০টি প্রশ্ন থাকবে— জেনারেল মেডিসিন বিষয়ে ৯৬টি এবং পেডিঅ্যাট্রিক্স বিষয়ে ২৪টি। দ্বিতীয় পেপারে সার্জারি, গাইনি অ্যান্ড অবস্টেট্রিক্স এবং প্রিভেন্টিভ অ্যান্ড সোশ্যাল মেডিসিন। ৩ বিষয়েই ৪০ করে নম্বর।

দ্বিতীয় ধাপে ১০০ নম্বরের পার্সোন্যালিটি টেস্ট। লিখিত পরীক্ষায় নেগেটিভ মার্কিং আছে। প্রতি ৩টি ভুলের জন্য ১ নম্বর কাটা যাবে। একই প্রশ্নের একাধিক উত্তর দিলেও তা ভুল উত্তর হিসাবে ধরা হবে এবং নেগেটিভ মার্কিং হবে, কিন্তু কোনো প্রশ্নের উত্তর না দিলে তা ভুল বলে ধরা হবে না, যদিও তার জন্য কোনো নম্বরও পাবেন না। পরীক্ষাকেন্দ্র মোবাইল ফোন নিয়ে যাওয়া চলবে না। কোনো ব্লুটুথ ডিভাইস বা অন্য কোনো যোগাযোগ মাধ্যম পরীক্ষার সময় সঙ্গে রাখা চলবে না। মোবাইল ফোন বা ওই ধরনের কোনো দামি জিনিস নিয়ে গেলে তা নিজের দায়িত্বে পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে রাখতে হবে। পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে কোনো রাখার ব্যবস্থা থাকবে না। সুতরাং সেগুলি খোয়া গেলে বা ক্ষতি হলে তার দায়িত্বও কমিশন নেবে না।

পরীক্ষাকেন্দ্র: পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের প্রার্থীদের জন্য কেন্দ্রে পরীক্ষা হবে এইসব শহরে: কলকাতা, আগরতলা, গ্যাংটক, পাটনা, পোর্ট ব্লেয়ার, রাঁচি, সম্বলপুর, জোরহাট, শিলং, কটক, ডিসপুর। এছাড়াও দেশের অন্যান্য রাজধানী শহরে। প্রার্থী কোন কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে ইচ্ছুক অনলাইন আবেদনের সময় সেটির উল্লেখ করতে হবে।

অ্যাডমিট কার্ড: আলাদাভাবে ডাকযোগে অ্যাডমিট কার্ড পাঠানো হবে না। পরীক্ষার তিন সপ্তাহ আগে প্রার্থীদের নামে অ্যাডমিশন সার্টিফিকেট (অ্যাডমিট কার্ড) আপলোড করা হবে। ওয়েবসাইট থেকে ওই অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড করতে হবে।

আবেদন ফি: ২০০ টাকা। চালান ডাউনলোড করে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার যে-কোনো শাখায় এই টাকা নগদে জমা দিতে হবে অথবা নেট ব্যাঙ্কিং/ ভিসা/মাস্টার ক্রেডিট/ডেবিট কার্ড ব্যবহার করেও এই টাকা দেওয়া যেতে পারে। তপশিলি, শারীরিক প্রতিবন্ধী ও মহিলা প্রার্থীদের কোনো ফি দিতে হবে না। যাঁরা ব্যাঙ্কের মাধ্যমে টাকা জমা দেবেন তাঁরা পার্ট-২ রেজিস্ট্রেশনের সময়  বাই ক্যাশ সিলেক্ট করে সিস্টেম জেনারেটেড পে-ইন-স্লিপের প্রিন্ট-আউট নেবেন। সেই প্রিন্ট-আউট পূরণ করে কেবলমাত্র পরবর্তী একটি কাজের দিনের মধ্যে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার যে-কোনো শাখায় কাজের সময়ে গিয়ে নগদে টাকা জমা দেবেন। ওইদিনের মধ্যে দিতে না পারলে কেবলমাত্র নেট ব্যাঙ্কিং, মাস্টার/ভিসা ক্রেডিট কার্ড বা ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে টাকা জমা করা যাবে। নেটে টাকা জমা করা যাবে ৬ মে সন্ধে ৬টা পর্যন্ত।

আবেদনের পদ্ধতি: আবেদন করতে হবে শুধুমাত্র অনলাইনে www.upsconline.nic.in ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। ওয়েবসাইটে দেওয়া নির্দেশ অনুযায়ী ফর্ম পূরণ করবেন। এক দরখাস্তে ও এক ফি-তেই একাধিক পছন্দের পদের জন্য আবেদন করা যাবে পছন্দক্রম জানিয়ে। আবেদন করার আগে নিজের ছবি ও সই স্ক্যান করে রাখবেন ওয়েবসাইটে দেওয়া মাপ অনুযায়ী। অনলাইনে সঠিক ভাবে পূরণ করে জমা দেওয়া আবেদনপত্রের একটি প্রিন্ট-আউট সংগ্রহ করে রাখতে হবে। ইন্টারভিউয়ের সময় এই প্রিন্ট-আউট ও সমস্ত মূল সার্টিফিকেট দাখিল করতে হবে। আবেদন করা যাবে ৬ মে, সন্ধে ৬টা পর্যন্ত।

পরীক্ষা পদ্ধতি, পরীক্ষার সিলেবাস, ডিউটি, বেতনক্রম ও অন্যান্য বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

হেল্পলাইন নম্বর: অনলাইন আবেদনে কোনো সমস্যা হলে অথবা এ ব্যাপারে কোনো জিজ্ঞাসা থাকলে যে-কোনো কাজের দিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টার মধ্যে ফোন করতে পারেন এই নম্বরগুলিতে: ০১১-২৩৩৮৫২৭১/০১১-২৩৩৮১১২৫/০১১-২৩০৯৮৫৪৩।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *