এলাহাবাদ ব্যাঙ্কে ৯২ স্পেশ্যালিস্ট অফিসার


এলাহাবাদ ব্যাঙ্কে ৯২ জন স্পেশ্যালিস্ট অফিসার (১৪ জন জুনিয়র ম্যানেজমেন্ট স্কেল ওয়ান এবং ৭৮ জন মিডল ম্যানেজমেন্ট স্কেল ওয়ান) নিয়োগ করা হবে। বিজ্ঞপ্তি নম্বর: RECT/2019-20/01. নিচের যোগ্যতার যে-কোনো ভারতীয়রা আবেদন করতে পারবেন।

শূন্যপদ: পোস্ট কোড ০১: সিকিউরিটি অফিসার (জেএমজি স্কেল ওয়ান): ১০ (অসংরক্ষিত ৪, তপশিলি জাতি ২, তপশিলি উপজাতি ১, ওবিসি ২, ইডব্লুএস অর্থাৎ আর্থিক দিক থেকে দুর্বলতর শ্রেণি ১)। পোস্ট কোড ০২: সিভিল ইঞ্জিনিয়ার (জেএমজি স্কেল ওয়ান): ৪ (অসংরক্ষিত ৩, ওবিসি ১)। পোস্ট কোড ০৩: ম্যানেজার ফায়ার সেফটি (এমএমজি স্কেল টু): ১ (অসংরক্ষিত)। পোস্ট কোড ০৪: ম্যানেজার ল (এমএমজি স্কেল টু): ১৫ (অসংরক্ষিত ৩, তপশিলি জাতি ২, তপশিলি উপজাতি ৫, ওবিসি ৪, ইডব্লুএস ১)। এইসবের মধ্যে ১টি শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্য সংরক্ষিত। পোস্ট কোড ০৫: কোম্পানি সেক্রেটারি (এমএমজি স্কেল টু): ১ (অসংরক্ষিত)। পোস্ট কোড ০৬: ম্যানেজার আইটি-নেটওয়ার্ক ম্যানেজার (এমএমজি স্কেল টু): ২ (অসংরক্ষিত)। পোস্ট কোড ০৭: ম্যানেজার আইটি সিকিউরিটি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর (এমএমজি স্কেল টু): ২ (অসংরক্ষিত)। পোস্ট কোড ০৮: ম্যানেজার আইটি সিস্টেম অ্যাডমিনিস্ট্রেটর (এমএমজি স্কেল টু): ২ (অসংরক্ষিত)। পোস্ট কোড ০৯: ম্যানেজার আইটি বিগ ডেটা অ্যানালিটিক্স (এমএমজি স্কেল টু): ২ (অসংরক্ষিত)। পোস্ট কোড ১০: ফিনানশিয়াল অ্যানালিস্ট (এমএমজি স্কেল টু): ৫১ (অসংরক্ষিত ৮, তপশিলি জাতি ১২, তপশিলি উপজাতি ৮, ওবিসি ১৭, ইডব্লুএস ৬)। এইসবের মধ্যে ২টি শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্য সংরক্ষিত। পোস্ট কোড ১১: ম্যানেজার-ইকুইটি/মিউচুয়াল ফান্ড ডেস্ক (এমএমজি স্কেল টু): ২ (অসংরক্ষিত)।

বেতনক্রম: জুনিয়র ম্যানেজমেন্ট স্কেল ওয়ানের ২৩৭০০-৪২০২০ টাকা। মিডল ম্যানেজমেন্ট গ্রেড স্কেল ওয়ানে ৩১৭০৫-৪৫৯৫০ টাকা। সঙ্গে অন্যান্য ভাতা।

বয়সসীমা: সিকিউরিটি অফিসার, সিভিল ইঞ্জিনিয়ার, ম্যানেজার ল, ম্যানেজার আইটি, ফিনানশিয়াল অ্যানালিস্টের বয়স হতে হবে ২০-৩৫ বছরের মধ্যে। ম্যানেজার ফায়ার সেফটি ও কোম্পানি সেক্রেটারির বয়স হতে হবে ২১-৩৫ বছরের মধ্যে। ম্যানেজার (ইকুইটি/মিউচুয়াল) পদের জন্য বয়স হতে হবে ২৪-৩৫ বছরের মধ্যে। সবক্ষেত্রেই বয়স সম্পূর্ণ হতে হবে ১ এপ্রিল ২০১৯-এর মধ্যে এবং সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

যোগ্যতা: সিকিউরিটি অফিসার: যে-কোনো শাখায় গ্র্যাজুয়েট সঙ্গে ৫ বছরের অভিজ্ঞতা। সিভিল ইঞ্জিনিয়ার: সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে চার বছরের বিই/ বিটেক। ম্যানেজার (ফায়ার সেফটি): বিই (ফায়ার)/ বিটেক (সেফটি অ্যান্ড ফায়ার ইঞ্জিনিয়ারিং)/ বিটেক (ফায়ার টেকনোলজি অ্যান্ড সেফটি ইঞ্জিনিয়ারিং) সঙ্গে অন্তত তিন বছরের অভিজ্ঞতা।

ম্যানেজার (ল): ল-তে ব্যাচেলর ডিগ্রি। বার কাউন্সিলে নাম নথিভুক্ত থাকতে হবে এবং তিন বছরের অভিজ্ঞতা।

কোম্পানি সেক্রেটারি: ডিগ্রি সঙ্গে ইনস্টিটিউট অব কোম্পানি সেক্রেটারি অব ইন্ডিয়া থেকে এসিএস। শিক্ষাগত যোগ্যতা অর্জনের পর অন্তত দু বছরের অভিজ্ঞতা।

ম্যানেজার আইটি (নেটওয়ার্ক ম্যানেজার): ১) কম্পিউটার সায়েন্স/ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন/ ইনফরমেশন টেকনোলজি/ ইলেক্ট্রনিক্স/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড ইনস্ট্রুমেন্টেশনে চার বছরের ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি অথবা ২) নেটওয়ার্ক ট্রাবলশ্যুটিং, নেটওয়ার্ক প্রোটোকলস, রাউটার্স, নেটওয়ার্ক ইলেক্ট্রনিক্স/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড ইনস্ট্রুমেন্টেশন/ কম্পিউটার সায়েন্স/ ইনফরমেশন টেকনোলজি/ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি অথবা গ্র্যাজুয়েট সঙ্গে ডোয়েকের বি লেভেল। নেনেটওয়ার্ক অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে অন্তত দু বছরের অভিজ্ঞতা।

ম্যানেজার আইটি (সিকিউরিটি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর): ১) কম্পিউটার সায়েন্স/ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন/ ইনফরমেশন টেকনোলজি/ ইলেক্ট্রনিক্স/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড ইনস্ট্রুমেন্টেশনে চার বছরে ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি। অথবা ইলেক্ট্রনিক্স/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড ইনস্ট্রুমেন্টেশন/ কম্পিউটার সায়েন্স/ ইনফরমেশন টেকনোলজি/ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি অথবা গ্র্যাজুয়েট সঙ্গে ডোয়েকের বি লেভেল। ২) অন্তত দু বছরের অভিজ্ঞতা।

ম্যানেজার আইটি (সিস্টেম অ্যাডমিনিস্ট্রেটর): ১) কম্পিউটার সায়েন্স/ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন/ ইনফরমেশন টেকনোলজি/ ইলেক্ট্রনিক্স/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশনে চার বছরের ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি। অথবা ইলেক্ট্রনিক্স/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড ইনস্ট্রুমেন্টেশন/ কম্পিউটার সায়েন্স/ ইনফরমেশন টেকনোলজি/ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি। অথবা গ্র্যাজুয়েট সঙ্গে ডোয়েকের `বি’ লেভেল। ২) অন্তত দু বছরের অভিজ্ঞতা।

ম্যানেজার আইটি (বিগ ডেটা অ্যানালিটিক্স): ১) কম্পিউটার সায়েন্স/ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন/ ইনফরমেশন টেকনোলজি/ ইলেক্ট্রনিক্স/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশনে চার বছরের ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি। অথবা ইলেক্ট্রনিক্স/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন/ ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড ইনস্ট্রুমেন্টেশন/ কম্পিউটার সায়েন্স/ ইনফরমেশন টেকনোলজি/ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি। অথবা গ্র্যাজুয়েট সঙ্গে ডোয়েকের `বি’ লেভেল। ২) অন্তত দু বছরের অভিজ্ঞতা।

ফিনানশিয়াল অ্যানালিস্ট: গ্র্যাজুয়েট এবং সিএফএ/ আইসিডব্লুএ/ পূর্ণ সময়ের এমবিএ (ফিনান্স)/ পূর্ণ সময়ের পিজিডিবিএম (ফিনান্স)।

ম্যানেজার (ইকুইটি/মিউচুয়াল ফান্ড ডেস্ক): পূর্ণ সময়ের এমবিএ

(ফিনান্স)/ চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট/ কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট। অন্তত ৩ বছরের অভিজ্ঞতা।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: অনলাইন পরীক্ষা ও ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। পোস্ট কোড ০১, ০৩ ও ০৪-এর ক্ষেত্রে অনলাইন পরীক্ষায় থাকবে রিজনিং (৫০টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ (৫০টি প্রশ্ন, ২৫ নম্বর), ব্যাঙ্কিং ইন্ডাস্ট্রি সহ জেনারেল অ্যাওয়্যারনেস (৫০টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), প্রফেশনাল নলেজ (৬০টি প্রশ্ন, ৬০ নম্বর)। মোট ১৮৫ নম্বরের পরীক্ষা, সময় ২ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট।

পোস্ট কোড ০২, ০৫, ০৬, ০৭, ০৮, ০৯, ১০ ও ১১-এর ক্ষেত্রে অনলাইন পরীক্ষায় থাকবে রিজনিং (৫০টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ (৫০টি প্রশ্ন, ২৫ নম্বর), কোয়ান্টিটেটিভ অ্যাপ্টিটিউড (৫০টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), প্রফেশনাল নলেজ (৬০টি প্রশ্ন, ৬০ নম্বর)। মোট ১৮৫ নম্বরের পরীক্ষা, সময় ২ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট। সবার ক্ষেত্রেই নেগেটিভ মার্কিং থাকবে। অনলাইন পরীক্ষার কেন্দ্র: কলকাতা (সেন্টার কোড ১০), বেঙ্গালুরু (০১), ভুবনেশ্বর (০২), চণ্ডীগড় (০৩), জয়পুর (০৪), লক্ষ্ণৌ (০৫), মুম্বই/ নভি মুম্বই/ থানে/ গ্রেটার মুম্বই (০৬), ভোপাল (০৭), চেন্নাই (০৮), হায়দরাবাদ (০৯), নতুন দিল্লি (১১)। অনলাইন পরীক্ষা থেকে বাছাই প্রার্থীদের ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাকা হবে।

আবেদনের ফি: ৬০০ টাকা (আবেদনের ফি+ ইন্টিমেশন চার্জ)। তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ১০০ টাকা। ডেবিট কার্ড (রুপে/ ভিসা/ মাস্টার কার্ড/ ম্যাস্ট্রো), ক্রেডিট কার্ড, ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং, আইএমপিএস, ক্যাশ কার্ড/ মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে আবেদনের ফি দেওয়া যাবে। ট্র্যানজ্যাকশন সম্পূর্ণ হলে একটি ই-রিসিট পাওয়া যাবে, ই-রিসিটের প্রিন্ট আউট নিয়ে রাখতে হবে।

আবেদনের পদ্ধতি: www.allahabadbank.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করার আগে ছবি, স্বাক্ষর, বাঁ হাতের বুড়ো আঙুলের ছাপ ও ডিক্ল্যারেশন স্ক্যান করে রাখতে হবে। অনলাইন আবেদন করার সময় নির্দিষ্ট স্থানে আপলোড করতে হবে। সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট মাপের রঙিন ছবি, ডাইমেনশন ২০০×২৩০ পিক্সেল (বাঞ্ছনীয়ত), মাপ হতে হবে ২০-৫০ কেবির মধ্যে। সাদা কাগজে কালো কালির পেন দিয়ে স্বাক্ষর করতে হবে, ডাইমেনশন ১৪০×৬০ পিক্সেল (বাঞ্ছনীয়ত), মাপ হতে হবে ১০-২০ কেবির মধ্যে। সাদা কাগজে কালো নীল কালি দিয়ে বা হাতের বুড়ো আঙুলের ছাপ, ডাইমেনশন ২৪০×২৪০ পিক্সেল, ২০০ ডিপিআই, মাপ ২০-৫০ কেবির মধ্যে। সাদা কাগজে কালো কালির পেন দিয়ে ডিক্লারেশন লিখতে হবে, ডাইমেনশন ৮০০×৪০০ পিক্সেল, ২০০ ডিপিআই, মাপ ৫০-১০০ কেবির মধ্যে। ডিক্ল্যারেশনের বয়ান ওয়েবসাইট থেকে পাওয়া যাবে (https://www.allahabadbank.in/rec_files/SPECIALIST2019-20.pdf)। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্যও জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

গুরুত্বপূর্ণ তারিখ: অনলাইন আবেদন করা যাবে ২৯ এপ্রিল ২০১৯ পর্যন্ত। আবেদনের ফি দেওয়া যাবে ২৯ এপ্রিল ২০১৯ পর্যন্ত। অনলাইন পরীক্ষার জন্য কললেটার ডাউনলোড করা যাবে জুন ২০১৯ থেকে। অনলাইন পরীক্ষার সম্ভাব্য সময়ও জুন ২০১৯।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *