fbpx

জাতীয় কৃষি-গ্রামোন্নয়ন ব্যাঙ্কে ৭৯ অ্যাসিঃ ম্যানেজার


ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক ফর এগ্রিকালচার অ্যান্ড রুরাল ডেভেলপমেন্টে ৭৯ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার গ্রেড-‘এ’ নিয়োগ করা হবে, এইসব  ডিসিপ্লিনে: জেনারেল, অ্যানিমাল হাজব্যান্ড্রি/ডেয়ারি টেকনোলজি, ইকোনমিক্স অ্যান্ড অ্যাগ্রিকালচারাল ইকোনমিক্স, এনভায়রনমেন্ট, ফুড প্রসেসিং, ফরেস্ট্রি, ফিনান্স, ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (সয়েল সায়েন্স), প্ল্যান্টেশন অ্যান্ড হর্টিকালচার। বিজ্ঞপ্তি নম্বর:  01/Grade A/2019-20. ডিসিপ্লিন অনুযায়ী শূন্যপদের বিন্যাস: ক্রমিক সংখ্যা ১: জেনারেল: শূন্যপদ ৪১ (অসংরক্ষিত ১৭, তপশিলি জাতি ৬, তপশিলি উপজাতি ৪, ওবিসি ১০, ইডব্লুএস অর্থাৎ অর্থনৈতিকভাবে দুর্বলতর সম্প্রদায় ৪)। ক্রমিক সংখ্যা ২: অ্যানিমাল হাজব্যান্ড্রি/ডেয়ারি টেকনোলজি: শূন্যপদ ৫ (অসং ২, তঃউঃজাঃ ১, ওবিসি ১, ইডব্লুএস ১)। ক্রমিক সংখ্যা ৩: ইকোনমিক্স অ্যান্ড অ্যাগ্রিকালচারাল ইকোনমিক্স: শূন্যপদ ৭ (অসং ২, তঃজাঃ ১, তঃউঃজাঃ ১, ওবিসি ২, ইডব্লুএস ১)। ক্রমিক সংখ্যা ৪: এনভায়রনমেন্ট: শূন্যপদ ৪ (অসং ১, তঃজাঃ ১, তঃউঃজাঃ ১, ওবিসি ১)। ক্রমিক সংখ্যা ৫: ফুড প্রসেসিং: শূন্যপদ ৩ (অসং ১, তঃজাঃ ১, ওবিসি ১)। ক্রমিক সংখ্যা ৬: ফরেস্ট্রি: শূন্যপদ ৩ (অসং ১, তঃউঃজাঃ ১, ওবিসি ১)। ক্রমিক সংখ্যা ৭: ফিনান্স শূন্যপদ ৭ (অসং ২, তঃজাঃ ১, তঃউঃজাঃ ১, ওবিসি ২, ইডব্লুএস ১)। ক্রমিক সংখ্যা ৮: ল্যান্ড ডেভলপমেন্ট (সয়েল সায়েন্স): শূন্যপদ ৫ (অসং ৩, তঃজাঃ ১, ওবিসি ১)। ক্রমিক সংখ্যা ৯: প্ল্যান্টেশন অ্যান্ড হর্টিকালচার: শূন্যপদ ৩ (অসং ২, ওবিসি ১)।

যোগ্যতা: জেনারেল স্ট্রিম: ন্যূনতম ৫০ (তপশিলি ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫) শতাংশ নম্বর সহ যে-কোনো বিষয়ে ব্যাচেলর ডিগ্রি অথবা ন্যূনতম ৫০ (তপশিলি ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫) শতাংশ নম্বর সহ পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি, অথবা পিএইচডি। অথবা ব্যাচেলর ডিগ্রি সহ চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট/ কস্ট অ্যাকাউন্ট্যান্ট/ কোম্পানি সেক্রেটারি অথবা ম্যানেজমেন্টে দু বছরের পূর্ণ সময়ের পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা/ পূর্ণ সময়ের এমবিএ সঙ্গে যে-কোনো শাখায় ব্যাচেলর ডিগ্রি।

অ্যানিমাল হাজব্যান্ড্রি/ডেয়ারি টেকনোলজি: ন্যূনতম ৫০ ((তপশিলি উপজাতি/শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫) শতাংশ নম্বর সহ ভেটেরিনারি সায়েন্স/ অ্যানিমাল হাজব্যান্ড্রি/ডেয়ারি টেকনোলজিতে ব্যাচেলর ডিগ্রি অথবা ন্যূনতম ৫০ ((তপশিলি উপজাতি/শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫) শতাংশ নম্বর সহ ভেটেরিনারি সায়েন্স/ অ্যানিমাল হাজব্যান্ড্রি/ডেয়ারি টেকনোলজিতে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি।

ইকোনমিক্স অ্যান্ড অ্যাগ্রিকালচারাল ইকোনমিক্স: ন্যূনতম ৫০ (তপশিলি ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫) শতাংশ নম্বর সহ ব্যাচেলর ডিগ্রি সঙ্গে ইকোনমিক্স/ এগ্রিকালচা্রাল ইকোনমিক্স থাকতে হবে। অথবা ন্যূনতম ৫০ (তপশিলি ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫) শতাংশ নম্বর নিয়ে ইকোনমিক্স/ এগ্রিকালচারাল ইকোনমিক্সে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি। সবক্ষেত্রেই সবকটি বছর/ সেমেস্টারে একটি মূল বিষয় হিসাবে ইকোনমিক্স থাকতে হবে।

এনভায়রনমেন্ট: ৫০ শতাংশ নম্বর সহ এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স/ এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে  ব্যাচেলর ডিগ্রি অথবা ৫০ শতাংশ নম্বর সহ এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স/ এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি। তপশিলি ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫% নম্বর দরকার।

ফুড প্রসেসিং: ন্যূনতম ৫০ শতাংশ নম্বর সহ ফুড প্রসেসিং/ ফুড টেকনালজিতে ব্যাচেলর/বিই/বিটেক ডিগ্রি অথবা ন্যূনতম ৫০ শতাংশ  নম্বর সহ ফুড প্রসেসিং/ ফুড টেকনোলজিতে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি। তপশিলি জাতি ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫% নম্বর দরকার।

ফরেস্ট্রি: ৫০ শতাংশ নম্বর সহ ফরেস্ট্রিতে ব্যাচেলর ডিগ্রি অথবা ৫০ শতাংশ নম্বর সহ ফরেস্ট্রিতে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি। তপশিলি উপজাতি ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫% নম্বর দরকার।

ফিনান্স: ৫০ শতাংশ (তপশিলি ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫%) নম্বর সহ ফিনান্স/ব্যাঙ্কিংয়ে বিবিএ/বিএম। অথবা ২ বছরের পুরো সময়ের ম্যানেজমেন্ট ডিপ্লোমা (ফিনান্স)/পুরো সময়ের এমবিএ (ফিনান্স)। অথবা ৫০ শতাংশ (তপশিলি ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫%) নম্বর সহ ব্যাচেলর অব ফিনান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট অ্যানালিসিস। অথবা যে-কোনো শাখায় ব্যাচেলর ডিগ্রি সহ চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট (আইসিএআইয়ের সদস্য হয়ে থাকতে হবে ১ মে ২০১৯-এ বা তার আগে)।

ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (সয়েল সায়েন্স): ৫০ শতাংশ নম্বর সহ এগ্রিকালচার/ এগ্রিকালচার (সয়েল সায়েন্স/ অ্যাগ্রোনমি)-তে ব্যাচেলর ডিগ্রি অথবা ৫০ শতাংশ নম্বর সহ এগ্রিকালচার/ এগ্রিকালচারে (সয়েল সায়েন্স/ অ্যাগ্রোনমি) পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি। তপশিলি জাতি ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫% নম্বর দরকার।

প্ল্যান্টেশন অ্যান্ড হর্টিকালচার: ৫০ শতাংশ নম্বর সহ হর্টিকালচারে ব্যাচেলর ডিগ্রি অথবা ৫০ শতাংশ নম্বর সহ হর্টিকালচারে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি। প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৪৫% নম্বর দরকার।

সবক্ষেত্রেই কোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় বা ইনস্টিটিউট থেকে পাশ করে থাকতে হবে।

বয়সসীমা: ১ মে ২০১৯ তারিখের হিসেবে বয়স হতে হবে ২১-৩০ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ২ মার্চ ১৯৮৯ থেকে ১ মে ১৯৯৮)। সংরক্ষণের ক্ষেত্রে নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

বেতনক্রম: মূল বেতন ২৮,১৫০- ৫৫,৬০০ টাকা, সঙ্গে অন্যান্য ভতা। শুরুতে মোট প্রায় ৬০,০০০ টাকা।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: লেখা পরীক্ষা ও ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। বিস্তারিত জানা যাবে ওয়েবসাইট থেকে। পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ১ম পর্যায়ের (প্রিলি) পরীক্ষাকেন্দ্র হবে কলকাতা/বৃহত্তর কলকাত, হুগলি, কল্যাণী, দুর্গাপুর, আসানসোল, শিলিগুড়ি, পোর্টব্লেয়ার, বোকারো, রাঁচি, জামশেদপুর, হাজারিবাগ, ধানবাদ, পাটনা, দ্বারভাঙা, গয়া, ভাগলপুর, মজফফরপুর, পূর্ণিয়া, আড়া, ভুবনেশ্বর, কটক, সম্বলপুর, রৌরকেল্লা, বালেশ্বর, ব্রহ্মপুর (গঞ্জাম), ঢেনকানল, আগরতলা, গুয়াহাটি, জোরহাট, ডিব্রুগড়, শিলচর, তেজপুর, কোহিমা, আইজল, ইম্ফল, নাহারলাগুন, গ্যাংটক-বার্দাং।

এই পরীক্ষায় সফল হলে দ্বিতীয় পর্যায়ে মূল পর্বের পরীক্ষাকেন্দ্র পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে হবে কলকাতা, পাটনা, রাঁচি, ভুবনেশ্বর গুয়াহাটি ও শিলিংয়ে।

আবেদনের ফি: ৮০০ টাকা (৬৫০ টাকা আবেদনের ফি+ ১৫০ টাকা ইন্টিমেশন চার্জ)। তপশিলি ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের আবেদনের ফি দিতে হবে না, শুধুমাত্র ইন্টিমেশন চার্জ বাবদ ১৫০ টাকা দিতে হবে। মাস্টার/ ভিসা/ রুপে ডেবিট বা ক্রেডিট বা ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং, আইএমপিএস, ক্যাশ কার্ড/ মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে ফি দেওয়া যাবে। ট্র্যানজ্যাকশন হয়ে গেলে একটি ই-রিসিট পাওয়া যাবে, ই-রিসিটের প্রিন্ট-আউট নিয়ে রাখতে হবে।

আবেদনের পদ্ধতি: www.nabard.org/career ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। নিজের বৈধ ইমেল আইডি ও ফোন নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করার আগে ছবি ও স্বাক্ষর স্ক্যান করে রাখতে হবে, ওয়েবসাইটে দেওয়া মাপ ও ফর্ম্যাটে। অনলাইন আবেদন করার সময় ছবি ও স্বাক্ষর নির্দিষ্ট স্থানে আপলোড করতে হবে। অনলাইন আবেদন করা যাবে ও ফি দেওয়া যাবে ২৬ মে ২০১৯ পর্যন্ত। আবেদন বা ফি দিতে কোনো সমস্যা হলে অভিযোগ জানাতে পারেন (http://cgrs.ibps.in-এর Candidate Grievance Lodging and Redressal Mechanism-এ)। শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পূর্ণ হতে হবে ১ মে ২০১৯ তারিখের মধ্যে, তার পরে ফল বেরিয়ে থাকলে আবেদন করা যাবে না। একজন অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজারের কেবল একটি পদের জন্য আবেদন করতে পারবেন, একাধিক আবেদন হয়ে গেলে কেবল শেষেরটি গ্রাহ্য হবে, বাকিগুলি বাতিল, তার ফিও ফেরৎ হবে না।

গুরুত্বপূর্ণ তারিখ: অনলাইন আবেদন করা যাবে ও ফি দেওয়া যাবে ২৬ মে পর্যন্ত। অনলাইন প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হবে ১৫/১৬ জুন ২০১৯ তারিখে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *