fbpx

গরমে সুস্থ থাকার কিছু উপায়

বৈশাখের শুরু থেকেই ভ্যাপসা অস্বস্তিকর গরমে নাজেহাল অবস্থা। বেলা বাড়ার সঙ্গে-সঙ্গে গরমের প্রকোপ বাড়তে থাকে। কিন্তু গরম বলে তো ঘরে বসে থাকার উপায় নেই। ছাত্রছাত্রী থেকে শুরু করে অফিস যাত্রী সকলকেই বাড়ির বাইরে বের হতেই হয়। যদিও সরকারি স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি পড়ে গেলেও বেসরকারি বেশ কিছু স্কুলে গরমের ছুটি পড়তে এখনও কয়েকটা দিন বাকি। অফিস, স্কুল, প্রাইভেট টিউশন, খেলাধূলো সামলেও এই গরমে কী করে সুস্থ থাকা যায় সেই নিয়ে কিছু মূল্যবান পরামর্শ দিলেন চিকিৎসক দেবাশিষ বসু।

 

অতিরিক্ত গরমে বাইরের তাপমাত্রার সঙ্গে শরীরের ভিতরের তাপমাত্রাও বেড়ে যায়। বিএমআর বেড়ে গিয়ে নানান রকম শারীরিক গোলযোগ হবার সম্ভাবনা থাকে। তাই গরমে জল বেশি করে খেতে হবে।

মশলাদার খাবার একেবারেই নয়, যতটা সম্ভব হালকা খাবার খেতে হবে। গরমের সময় ব্যালান্স ডায়েট রাখাটা খুব জরুরি। ঘাম বেশি হওয়ায় শরীর থেকে জল বেরিয়ে যায়, তাই জল বেশি করে খাওয়া দরকার। অন্তত ২-৩ লিটার জল অবশ্যই খেতে হবে। মরসুমি ফল ও ফলের রস খুবই উপকারী।

রোদে চোখের ও ত্বকের ক্ষতি হয়, তাই একান্ত প্রয়োজন ছাড়া রোদে বাড়ির বাইরে না যাওয়াই ভালো। রাইরে গেলেও রোদ চশমা, টুপি, ছাতা ব্যবহার করতে হবে। হঠাৎ শরীরে অস্বস্তি বা খুব ঘাম হলে নুন-চিনি-জল বা ওআরএস খেলে স্বস্তি পাওয়া সম্ভব।

গরমে জ্বর ও পেট খারাপের সম্ভাবনা বেশি থাকে। জ্বর হলে ঠান্ডা জলে স্নান করতে হবে। এছাড়া সুতির হাল্কা পোশাক পরা ভালো। ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে বলব, বাইরের খাবার এড়িয়ে চলো। বাড়ির তৈরি খাবার নিয়ে যাওয়াই শ্রেয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *