fbpx

জাতীয় কৃষি গ্রামোন্নয়ন ব্যাঙ্কে ৮ ম্যানেজার

ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক ফর এগ্রিকালচার অ্যান্ড রুরাল ডেভেলপমেন্টে ৯ জন অফিসার (গ্রেড বি) নিয়োগ করা হবে। বিজ্ঞপ্তি নম্বর: 2/Grade B/2019-20.

শূন্যপদ: ম্যানেজার (আরডিবিএস) জেনারেল: ৮ (অসংরক্ষিত ৪, তপশিলি জাতি ১, ওবিসি ৩)।

যোগ্যতা: ন্যূনতম ৬০ শতাংশ (তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে ৫৫ শতাংশ) নম্বর নিয়ে যে-কোনো বিষয়ে ব্যাচেলর ডিগ্রি অথবা ন্যূনতম ৫৫ শতাংশ (তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ৫০ শতাংশ) নম্বর নিয়ে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি অথবা পিএইচডি। শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পূর্ণ হতে হবে ১ মে ২০১৯-এর মধ্যে।

বয়সসীমা: ১ মে ২০১৯ তারিখের হিসেবে বয়স হতে হবে ২১-৩৫ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ২ মে ১৯৮৪ থেকে ১ মে ১৯৯৮)। সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

বেতনক্রম: মূল বেতন ৩৫১৫০-৬২৪০০ টাকা। সঙ্গে অন্যান্য ভাতা।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: অনলাইন পরীক্ষ ও ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। অনলাইন পরীক্ষা হবে দুটি পর্যায়ে প্রিলিমিনারি ও মেইন। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় অবজেক্টিভ মাল্টিপল চয়েস টাইপের প্রশ্ন থাকবে রিজনিং (২০ নম্বর), ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ (৪০ নম্বর), কম্পিউটার নলেজ (২০ নম্বর), জেনারেল অ্যাওয়্যারনেস (২০ নম্বর), কোয়ান্টিটেটিভ অ্যাপ্টিটিউড (২০ নম্বর), ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল ইস্যু (৪০ নম্বর), এগ্রিকালচার অ্যান্ড রুরাল ডেভেলপমেন্ট (৪০ নম্বর)। মোট ২০০ নম্বরের পরীক্ষা, সময় ১২০ মিনিট। সফল হলে মেইন পরীক্ষায় মাল্টিপল চয়েস টাইপের প্রশ্ন ও ডেসক্রিপটিভ প্রশ্ন থাকবে। পেপার ওয়ানে ডেসক্রিপটিভ জেনারেল ইংলিশ (১০০ নম্বর), পেপার টুতে মাল্টিপল চয়েস টাইপের প্রশ্ন ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল ইস্যু ও এগ্রিকালচার অ্যান্ড রুরাল ডেভেপমেন্ট (১০০ নম্বর), পেপার থ্রিতে ডেভেলপমেন্ট ইকোনমিক্স, স্ট্যাটিস্টিক্স, ফিনান্স ও ম্যানেজমেন্ট (১০০ নম্বর)। লিখিত পরীক্ষা থেকে বাছাই প্রার্থীদের ইন্টারভিউয়ের (৪০ নম্বর) জন্য ডাকা হবে। পরীক্ষার জন্য কললেটার সময়মতো ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করতে হবে। তপশিলি জাতি/ উপজাতি, ওবিসি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের জন্য প্রি-রিক্রুটমেন্ট ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে, বিস্তারিত জানা যাবে ওয়েবসাইট থেকে।

পরীক্ষাকেন্দ্র: প্রিলিমিনারি পরীক্ষার কেন্দ্র— পশ্চিমবঙ্গ: আসানসোল, দুর্গাপুর, হুগলি, কল্যাণী, কলকাতা/ বৃহত্তর কলকাতা, শিলিগুড়ি। অসম: গুয়াহাটি, ডিব্রুগড়, জোরহাট, শিলচর, তেজপুর। বিহার: আড়া, ভাগলপুর, দ্বারভাঙ্গা, গয়া, মজফফরপুর, পাটনা, পূর্ণিয়া। ওড়িশা: বালেশ্বর, বেরহ্যামপুর (গঞ্জাম), ভুবনেশ্বর, কটক, সম্বলপুর, ঢেঙ্কানাল, রৌরকেল্লা। সিকিম: গ্যাংটক-বারডাং। অন্যান্য রাজ্যের পরীক্ষাকেন্দ্র সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে ওয়েবসাইট থেকে।

মেইন পরীক্ষার কেন্দ্রগুলি হল– কলকাতা, আমেদাবাদ/ গান্ধীনগর, বেঙ্গালুরু, ভোপাল, ভুবনেশ্বর, চণ্ডীগড়-মোহালি, চেন্নাই, গুয়াহাটি, হায়দরাবাদ, জয়পুর, জম্মু, শ্রীনগর, লক্ষ্ণৌ, মুম্বই/ নভি মুম্বই/ থানে, দিল্লি এনসিআর, পাটনা, পুণে, রাইপুর, রাঁচি, শিলং, তিরুবনন্তপুরম।

আবেদনের ফি: ৯০০ টাকা (৭৫০ টাকা আবেদনের ফি+ ১৫০ টাকা ইন্টিমেশন চার্জ)। তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের আবেদনের ফি দিতে হবে না, শুধুমাত্র ইন্টিমেশন চার্জ বাবদ ১৫০ টাকা দিতে হবে। মাস্টার/ ভিসা/ রুপে ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড বা ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং, আইএমপিএস, ক্যাশ কার্ড/ মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে ফি দেওয়া যাবে। ট্র্যানজ্যাকশন সম্পূর্ণ হলে একটি ই-রিসিট পাওয়া যাবে, ই-রিসিটের প্রিন্ট আউট নিয়ে রাখতে হবে।

আবেদনের পদ্ধতি: www.nabard.org ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করার আগে ছবি ও স্বাক্ষর স্ক্যান করে রাখতে হবে। সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট মাপের রঙিন ছবি, ডাইমেনশন ২০০×২৩০ পিক্সেল (বাঞ্ছনীয়ত), মাপ হতে হবে ২০-৫০ কেবির মধ্যে। সাদা কাগজে কালো কালির পেন দিয়ে স্বাক্ষর করতে হবে, ডাইমেনশন ১৪০×৬০ পিক্সেল (বাঞ্ছনীয়ত), মাপ হতে হবে ১০-২০ কেবির মধ্যে। স্ক্যানার রেজলিউশন ২০০ ডিপিআই। ছবি ও স্বাক্ষর জেপিজি বা জেপেগ ফরম্যাটে স্ক্যান করতে হবে। অনলাইন আবেদন করার সময় তা নির্দিষ্ট স্থানে আপলোড করতে হবে। অনলাইন আবেদন করা যাবে ২৬ মে ২০১৯ পর্যন্ত। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *