fbpx

আইডিবিআই ব্যাঙ্কে ট্রেনিং দিয়ে ৬০০ অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার

আইডিবিআই ব্যাঙ্কে ৬০০ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার গ্রেড ‘এ’ নিয়োগ করা হবে। বিজ্ঞপ্তি নম্বর: ২/২০১৯-২০২০। ব্যাঙ্কিং অ্যান্ড ফিনান্সে এক বছরের পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা কোর্সে প্রশিক্ষণ দিয়ে নিয়োগ করা হবে। মণিপাল স্কুল অব ব্যাঙ্কিং (বেঙ্গালুরু)-তে এই ট্রেনিং করাবে। কোর্স শেষ হলে মণিপাল বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে ব্যাঙ্কিং অ্যান্ড ফিনান্সে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা পাওয়ার পর আইডিবিআই ব্যাঙ্কে অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার গ্রেড ‘এ’ পদে যোগ দেওয়ার জন্য বিবেচিত হবেন। নিচের যোগ্যতার যে-কোনো ভারতীয় আবেদন করতে পারবেন।

কোর্স ফি ও বেতনক্রম: এক বছরের কোর্সের জন্য প্রোগ্রাম ফি তিন লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা, সঙ্গে জিএসটি। নির্বাচিত প্রার্থীরা কোর্স-ফির জন্য আইডিবিআই ব্যাঙ্ক থেকে এডুকেশন লোন নিতে পারবেন। ব্যাঙ্কে অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার হিসাবে যোগ দেওয়ার পর থেকে এডুকেশন লোন শোধের কিস্তি অর্থাৎ ইএমআই চালু হবে। ট্রেনিং চলাকালীন (৯ মাস) প্রতি মাসে ২৫০০ টাকা করে স্টাইপেন্ড দেওয়া হবে। ইন্টার্নশিপ চলাকালীন (৩ মাস) প্রতি মাসে ১০০০০ টাকা করে স্টাইপেন্ড দেওয়া হবে। অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার গ্রেড ‘এ’ হিসাবে যোগ দেবার পর মূল বেতনক্রম হবে ২৩৭০০-৪২০২০ টাকা, সঙ্গে অন্যান্য ভাতা।

শূন্যপদের বিন্যাস: ৬০০ (অসংরক্ষিত ২৭৩, তপশিলি জাতি ৯০, তপশিলি উপজাতি ৪৫, ইডব্লুএস অর্থাৎ আর্থিক দিক থেকে দুর্বলতর শ্রেণি, ওবিসি ১৬২)। এইসবের মধ্যে ৬টি দৃষ্টি প্রতিবন্ধী, ৬টি অস্থি প্রতিবন্ধী, ৬টি শ্রবণ প্রতিবন্ধী ও ৬টি এমডি/ আইডিদের জন্য সংরক্ষিত।

যোগ্যতা: স্নাতক। শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পূর্ণ হতে হবে ১ জুন ২০১৯-এর মধ্যে।

বয়সসীমা: ১ জুন ২০১৯ তারিখের হিসেবে বয়স হতে হবে ২১-২৮ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ২ জুন ১৯৯১-১ জুন ১৯৯৮ সালের মধ্যে)। সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: অনলাইন পরীক্ষা ও পার্সোনাল ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। অনলাইন পরীক্ষায় থাকবে লজিক্যাল রিজনিং, ডেটা অ্যানালিসিস অ্যান্ড ইন্টারপ্রিটেশন (৬০টি প্রশ্ন, ৬০ নম্বর), ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ (৪০টি প্রশ্ন, ৪০ নম্বর), কোয়ান্টিটেটিভ অ্যাপ্টিটিউড (৪০টি প্রশ্ন, ৪০ নম্বর), জেনারেল/ ইকোনমি/ ব্যাঙ্কিং অ্যাওয়্যারনেস (৬০টি প্রশ্ন, ৬০ নম্বর)। মোট ২০০ নম্বরের পরীক্ষা, সময় ২ ঘণ্টা। নেগেটিভ মার্কিং থাকবে, এক-একটি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর করে কাটা হবে। অনলাইন পরীক্ষা হবে ২১ জুলাই ২০১৯। অনলাইন পরীক্ষা কেন্দ্র: পশ্চিমবঙ্গ (বৃহত্তর কলকাতা, বর্ধমান, বহরমপুর, দুর্গাপুর, শিলিগুড়ি)। অন্যান্য রাজ্যের পরীক্ষাকেন্দ্র সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে ওয়েবসাইট থেকে। অনলাইন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে ইন্টারভিউ।

আবেদনের ফি: ৭০০ টাকা। তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ১৫০ টাকা। এসবিআই ইপে-র মাধ্যমে ফি দেওয়া যাবে ৩ জুলাই ২০১৯ পর্যন্ত।

আবেদনের পদ্ধতি: www.idbibank.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করার আগে ছবি ও স্বাক্ষর স্ক্যান করে রাখতে হবে। সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট মাপের রঙিন ছবি, ডাইমেনশন ২০০×২৩০ পিক্সেল (বাঞ্ছনীয়ত), মাপ হতে হবে ১০-৬০ কেবির মধ্যে। সাদা কাগজে কালো কালির পেন দিয়ে স্বাক্ষর করতে হবে, ডাইমেনশন ১৪০×৬০ পিক্সেল (বাঞ্ছনীয়ত), মাপ হতে হবে ১০-৩০ কেবির মধ্যে। স্ক্যানার রেজলিউশন ২০০ ডিপিআই। ছবি ও স্বাক্ষর জেপিজি বা জেপেগ ফরম্যাটে স্ক্যান করতে হবে। অনলাইন আবেদন করার সময় ছবি ও স্বাক্ষর নির্দিষ্ট স্থানে আপলোড করতে হবে। অনলাইন আবেদন করা যাবে ৩ জুলাই ২০১৯ পর্যন্ত। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *