fbpx

সামরিক বাহিনীতে নার্সিং বিএসসি পড়িয়ে চাকরি

কেন্দ্রীয় সশস্ত্র বাহিনীর নার্সিং কলেজে বিএসসি (নার্সিং) ভর্তির দরখাস্ত নেওয়া শুরু হচ্ছে আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে। শুধুমাত্র অবিবাহিতা, বিধবা, বিবাহবিচ্ছন্না ও আইনত স্বামীর থেকে আলাদা থাকা  পিছুটানহীন মহিলারা নিচের মতো যোগ্যতা থাকলে আবেদন করতে পারবেন। ট্রেনিং, ইউনিফর্ম, থাকা-খাওয়া ইত্যাদি যাবতীয় খরচ সরকারের। ট্রেনিং কোর্সের পর পরীক্ষার ফল বেরনোর দিন থেকেই  মিলিটারি নার্সিং সার্ভিসে পার্মানেন্ট বা শর্ট সার্ভিস কমিশনে নিয়োগ করা হবে। সেক্ষেত্রে অন্তত পাঁচ বছর সশস্ত্র বাহিনীতে নার্স হিসাবে কাজ করতে হবে। আর তা না হলে ট্রেনিংয়ের সমস্ত খরচ ফেরত দিতে হবে।

আবশ্যিক যোগ্যতা: জন্মতারিখ হতে হবে ১-১০-১৯৯৫ থেকে ৩০-৯-২০০৩-র মধ্যে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: মোট অন্তত ৫০ শতাংশ নম্বর সহ রেগুলার কোর্সে প্রথম সুযোগেই দ্বাদশ শ্রেণি বা সমতুল পাশ। উচ্চমাধ্যমিক/ সমতুল পরীক্ষায় ইলেক্টিভ সাবজেক্ট হিসেবে (অপশনাল বা ভোকেশনাল হিসেবে নয়) ফিজিক্স-কেমিস্ট্রি-বায়োলজি ও ইংরেজি থাকতে হবে। ওই বিষয়গুলির প্রত্যেকটিতে ( সায়েন্স সাবজেক্টের ক্ষেত্রে থিওরেটিক্যাল ও প্র্যাক্টিক্যাল দুয়েই পাশ করে থাকতে হবে। যাঁরা এবার চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা দেবেন তাঁরাও শর্তসাপেক্ষে আবেদনের যোগ্য। সেক্ষেত্রে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হলে ওপরের মতো নম্বর পেয়ে পাশ করার প্রমাণ দাখিল করতে হবে কোর্সে যোগ দেবার আগে। প্রাইভেটে বা ওপেন স্কুলিংয়ে পড়ে বা কোনো বিষয়ে কম্পার্টমেন্ট পেয়ে পাশ করে থাকলে আবেদন করা যাবে না।

শারীরিক মাপজোক: সশস্ত্র বাহিনীর নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেক প্রার্থীর শারীরিক সক্ষমতা থাকতে হবে। যেমন, ন্যূনতম ১৪৮ সেন্টিমিটার উচ্চতা থাকা দরকার এবং ওই উচ্চতায় ২০ বছর বয়সের ক্ষেত্রে ওজন হতে হবে অন্তত ৩৯ কেজি, ২৫ বছর হলে ৪১ কেজি, ৩০ বছর হলে ৪৩ কেজি ইত্যাদি, ১৫০ সেমি উচ্চতায় ওই বয়সগুলিতে যথাক্রমে ৪০, ৪২ ও ৪৩.৫ কেজি ইত্যাদি ( উত্তর-পূর্ব ভারতের প্রার্থীরা উচ্চতায় ৫ সেন্টিমিটার ছাড় পাবেন)। ১০ শতাংশ পর্যন্ত কম-বেশি ওজন গ্রাহ্য হবে। সব প্রার্থীরাই, আর সব দিক দিয়ে নির্বাচিত হলে উচ্চায় ১.৩ সেমি ছাড় পেতে পারেন। প্রার্থীদের বুকের এক্স-রে ও তলপেট এবং শ্রোণীর (নিতম্বের মধ্যকার অস্থিকাঠামোর) ইউএসজি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। শারীরিক মান সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য পাবেন আর্মির ওয়েবসাইটে (যেমন দৃষ্টিশক্তি হতে হবে চশমা ছাড়া বা চশমা পরে ভালো চোখে ৬/৬ খারাপ চোখে ৬/১৮ মায়োপিয়া/ হাইপার মেট্রোপিয়া থাকলে তার গ্রহণযোগ্য মাত্রা ইত্যাদিও জেনে নিতে হবে)।

প্রার্থী বাছাই: প্রার্থী বাছাই করা হবে লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে। প্রশ্ন হবে অবজেক্টিভ টাইপের। সময় ৯০ মিনিট। প্রশ্ন থাকবে জেনারেল ইংলিশ, বায়োলজি, ফিজিক্স, কেমিস্ট্রি, জেনারেল ইন্টিলিজেন্স বিষয়ে। পরীক্ষা নেওয়া হবে ২০২০ সালের এপ্রিলে। পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের প্রার্থীদের জন্য কলকাতা, গুয়াহাটি, দানাপুরে  লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে। লিখিত পরীক্ষায় সফলদের মে নাগাদ ইন্টারভিউ ও তাতেও সফল হয়ে চূড়ান্ত মেধাতালিকায় উঠলে মেডিক্যাল পরীক্ষায় ডাকা হবে। এই তিনটি পরীক্ষায় সাফল্যের ভিত্তিতে প্রকাশিত মেধাতালিকা অনুযায়ী প্রার্থীদের ভর্তি করা হবে।

আবেদনের ফি: ৭৫০ টাকা।

আবেদন পদ্ধতি www.joinindianarmy.nic.in  ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করা যাবে আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *