fbpx

৩২৫৯ এলডিসি, জুনিয়র ও পোস্টাল অ্যাসিস্ট্যান্ট

পশ্চিমবঙ্গ সহ দেশের সমস্ত রাজ্যে ও দিল্লিতে অবস্থিত কেন্দ্রীয় সরকারের অফিসগুলিতে ৩২৫৯ জন লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক/ জুনিয়র সেক্রেটারিয়েট অ্যাসিস্ট্যান্ট, পোস্টাল অ্যাসিস্ট্যান্ট/ সর্টিং অ্যাসিস্ট্যান্ট ও ডেটা এন্ট্রি অপারেটর নিয়োগ করা হবে। প্রার্থী বাছাই করবে স্টাফ সিলেকশন কমিশন, কম্বাইন্ড হায়ার সেকেন্ডারি লেভেল (১০+২) পরীক্ষা, ২০১৭-র মাধ্যমে। আবেদনের শেষ তারিখ বাড়িয়ে ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭ করা হয়েছে। যাঁরা আবেদন করতে পারেননি তাঁদের সুবিধার জন্য পুরো খবরটা এখানে আবার দেওয়া হল। প্রসঙ্গত, খবরটি এর আগে জীবিকা দিশারীর ২৬ নভেম্বরের সংখ্যায় বেরিয়েছিল।

শূন্যপদ: এখন পর্যন্ত পাওয়া হিসাব অনুযায়ী লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক/ জুনিয়র সেক্রেটরিয়েট অ্যাসিস্ট্যান্ট, পোস্টাল অ্যাসিস্ট্যান্ট/ সর্টিং অ্যাসিস্ট্যান্ট, ডেটা এন্ট্রি অপারেটরের শূন্যপদ যথাক্রমে ৮৯৮, ২৩৫৯ ও ২। ডেটা এন্ট্রি অপারেটর গ্রেড-এ-র জন্য কোনো শূন্যপদের চাহিদা পাওয়া যায়নি।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্বীকৃত বোর্ড বা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চমাধ্যমিক বা সমতুল পাশ। অফিস অব কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল অব ইন্ডিয়ার ডেটা এন্ট্রি অপারেটরের ক্ষেত্রে কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে ম্যাথমেটিক্স একটি বিষয় হিসাবে নিয়ে বিজ্ঞান শাখায় দ্বাদশ শ্রেণি সমতুল পাশ। শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পূর্ণ হতে হবে ১ আগস্ট ২০১৮ তারিখের মধ্যে।

বয়সসীমা: ১ আগস্ট, ২০১৮ অনুযায়ী বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ২৭ বছরের মধ্যে। তপশিলি প্রার্থীরা বয়সে ৫ বছর এবং ওবিসি প্রার্থীরা ৩ বছর ছাড় পাবেন। প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ১০ বছর ছাড় দেওয়া হবে। এছাড়াও ওবিসি (প্রতিবন্ধী) তপশিলি (প্রতিবন্ধী) প্রার্থীরা যথাক্রমে ১৩ বছর ও ১৫ বছর ছাড় পাবেন। প্রাক্তন সেনাকর্মীদের ক্ষেত্রে প্রকৃত বয়স থেকে মিলিটারি সার্ভিসের মেয়াদকাল+ ৩ বছর (ওবিসি হলে ৬ বছর এবং তপশিলি প্রাক্তন সেনাকর্মীদের ক্ষেত্রে ৮ বছর) বাদ দিয়ে যা দাঁড়াবে তত বছর ছাড় পাবেন। বিধবা/ ডিভোর্সি/ আইনত স্বামীর থেকে আলাদা থাকা মহিলারা আবার বিয়ে না করে থাকলে এবং বয়স ৩৫ বা তার মধ্যে (তপশিলি বা ওবিসি হলে যথাক্রমে ৪০ বছর এবং ৩৮ বছর বয়স পর‌্যন্ত) হলে আবেদন করতে পারবেন।

বেতনক্রম: লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক/ জুনিয়র সেক্রেটারিয়েট অ্যাসিস্ট্যান্ট পদের ক্ষেত্রে পে ব্যান্ড ওয়ান অনুযায়ী ৫,২০০-২০,২০০ টাকা। পোস্টাল অ্যাসিস্ট্যান্ট/ সর্টিং অ্যাসিস্ট্যান্ট পদের ক্ষেত্রে পে ব্যান্ড ওয়ান অনুযায়ী ৫,২০০-২০,২০০ টাকা, গ্রেড পে ২,৪০০ টাকা। ডেটা এন্ট্রি অপারেটর পদের ক্ষেত্রে পে ব্যান্ড ওয়ান অনুযায়ী ৫,২০০-২০,২০০ টাকা, গ্রেড পে ২,৪০০ টাকা। অন্যান্য ভাতাও আছে।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: লিখিত পরীক্ষা ও টাইপিং টেস্ট/ স্কিল টেস্টের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। লিখিত পরীক্ষা হবে দুটি পর্যায়ে। টিয়ার-ওয়ান ও টিয়ার-টু। টিয়ার-ওয়ানে থাকবে জেনারেল ইন্টেলিজেন্স (২৫টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ (২৫টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), কোয়ান্টিটেটিভ অ্যাপ্টিটিউড (২৫টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর) ও জেনারেল অ্যাওয়্যারনেস ( প্রশ্ন, ৫০ নম্বর) পরীক্ষার সময় ৬০ মিনিট। অবজেক্টিভ টাইপের প্রশ্ন হবে। ইংরেজি বাদে অন্যান্য বিষয়ের প্রশ্ন হবে ইংরেজি ও হিন্দিতে। নেগেটিভ মার্কিং আছে। এক-একটি ভুল উত্তরের জন্য ০.৫০ নম্বর করে কাটা হবে। টিয়ার-টু হবে ডেসক্রিপটিভ। টিয়ার থ্রি-তে স্কিল টেস্ট/ টাইপ টেস্ট থাকবে। স্কিল টেস্ট/ টাইপ টেস্টেও পাশ করতেই হবে, যদিও তার কোনো নম্বর মেধাতালিকার জন্য যোগ হবে না। চড়ান্ত মেধাতালিকা তৈরি হবে টিয়ার-ওয়ান ও টিয়ার-টুতে পাওয়া নম্বরের ভিত্তিতে। পরীক্ষার সিলেবাস সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে নিচের ওয়েবসাইট থেকে।

স্কিল টেস্ট (ডেটা এন্ট্রি অপারেটর পদের জন্য): এক ঘণ্টায় কম্পিউটারে ৮০০০ কি-ডিপ্রেশন স্পিড থাকতে হবে। কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল অফিসের ডেটা এন্ট্রি অপারেটরের ক্ষেত্রে প্রতি ঘণ্টায় ১৫০০০ কি-ডিপ্রেশন।

অ্যাসিস্ট্যান্ট, লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক, পদের জন্য: কম্পিউটারে টাইপ টেস্ট নেওয়া হবে। ইংরেজি টাইপিংয়ে মিনিটে ৩৫ বা হিন্দি টাইপিংয়ে ৩০ স্পিড (অর্থাৎ ইংরেজিতে ঘণ্টায় ১০৫০০ এবং হিন্দিতে ৯০০০ কি-ডিপ্রেশন থাকা চাই। ১০ মিনিটের পরীক্ষা। দৃষ্টি প্রতিবন্ধীরা ৩০ মিনিট সময় পাবেন। স্কিল টেস্ট এবং টাইপরাইটিং টেস্টে সফল হলে নিয়োগের জন্য পছন্দমতো দপ্তর বাছাইয়ের সুযোগ দেওয়া হবে।

ফি: আবেদন ফি ১০০ টাকা। এসবিআই চালান/ নেট ব্যাঙ্কিং, যে-কোনো ব্যাঙ্কের ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে আবেদনের ফি দেওয়া যাবে।  মহিলা, তপশিলি, শারীরিক প্রতিবন্ধী ও প্রাক্তন সেনাকর্মী প্রার্থীদের ফি লাগবে না।

আবেদনের পদ্ধতি: http://ssconline.nic.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও ফোন নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করার আগে ছবি ও স্বাক্ষর স্ক্যান করে রাখতে হবে। অনলাইন আবেদন করার সময় ছবি ও স্বাক্ষর নির্দিষ্ট স্থানে আপলোড করতে হবে।

যাবতীয় খুঁটিনাটি বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে www.ssconline.nic.in ওয়েবসাইটে

গুরুত্বপূর্ণ তারিখ: আবেদন করা যাবে ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখ বিকাল টা পর্যন্ত। টিয়ার ওয়ানের পরীক্ষা হবে মার্চ থেকে ২৬ মার্চ ২০১৮ পর্যন্ত। টিয়ার টু পরীক্ষা হবে জুলাই ২০১৮ তারিখে

দরখাস্তের বয়ানে শিক্ষাগত যোগ্যতা সংরক্ষণের কোড নিচের লিঙ্কে জানানো হলঃ

যোগ্যতা ও সংরক্ষণের কোড

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *