কেন্দ্রীয় পুলিস বাহিনীগুলিতে ১,২২৩ সাবইনস্পেক্টর

 

দিল্লি  পুলিস এবং পাঁচ কেন্দ্রীয় সশস্ত্র পুলিস বাহিনী অর্থাৎ সিএপিএফ (সেন্ট্রাল আর্মড পুলিস ফোর্সেস, সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিস ফোর্স, বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স, ইন্দো-টিবেটান বর্ডার পুলিস, সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্স, সশস্ত্র সীমাবল)-এ সাবইনস্পেক্টর পদে এবং সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সে অ্যাসিস্ট্যান্ট সাবইনস্পেক্টর পদে গ্র্যাজুয়েট তরুণ-তরুণীদের নিয়োগ করা হবে। সিএপিএফ-এর সাবইনস্পেক্টরের পদগুলি গ্রুপ-বি নন-গেজেটেড এবং দিল্লি পুলিসের সাবইনস্পেক্টর ও সিআইএসএফের অ্যাসিস্ট্যান্ট সাবইনস্পেক্টরের পদগুলি গ্রুপ-সি নন-গেজেটেড পর্যায়ের। প্রার্থী বাছাই করবে স্টাফ সিলেকশন কমিশন। মোট শূন্যপদ ১,২২৩টি, শূন্যপদ সংগ্রহের কাজ চলছে, সিআইএসএফের এসআই ও এএসআই-এর শূন্যপদের সংখ্যা এখনও পাওয়া যায়নি। এপর্যন্ত পাওয়া শূন্যপদ হল:

দিল্লি পুলিসের সাবইনস্পেক্টর পদে নেওয়া হবে পুরুষ ৯৭ (অসংরক্ষিত ৪৮, ওবিসি ৩৯, তপশিলিজাতি ৬, তপশিলি উপজাতি ৪, মহিলা ৫৩ (অসংরক্ষিত ২৮, ওবিসি ১৫, তপশিলি জাতি ৭, তপশিলি উপজাতি ৩)। এসবের মধ্যে প্রাক্তন সমরকর্মী ১১।

কেন্দ্রীয় পুলিস বাহিনীগুলিতে সাবইনস্পেক্টর (জিডি) পদে মোট ১,০৭৩ (পুরুষ ১,০৩৫, মহিলা ৩৮)। এসবের মধ্যে বিএসএফে ৫০৮: পুরুষ ৪৮৩ (অসংরক্ষিত ২৪৫, ওবিসি ১৩০, তপশিলি জাতি ৭২, তপশিলি উপজাতি ৩৬), মহিলা ২৫ (অসংরক্ষিত ১২, ওবিসি ৭, তপশিলিজাতি ৪, তপশিলি উপজাতি ২)। এসবের মধ্যে প্রাক্তন সমরকর্মী ৫১। সিআইএসএফে শূন্যপদ জানা যায়নি। সিআরপিএফে ২৭৪: পুরুষ ২৭৪ (অসংরক্ষিত ১৩৮, ওবিসি ৭৪, তপশিলিজাতি ৪১, তপশিলি উপজাতি ২১) এসবের মধ্যে প্রাক্তন সমরকর্মী ২৭, মহিলা ০। আইটিবিপির ৮৫: পুরুষ ৭২ (অসংরক্ষিত ১৫, ওবিসি ৪২, তপশিলি জাতি ৫, তপশিলি উপজাতি ১০), মহিলা ১৩ (অসংরক্ষিত ৩, ওবিসি ৭, তপশিলিজাতি ১, তপশিলি উপজাতি ২)। এসবের মধ্যে প্রাক্তন সমরকর্মী ৮। এসএসবি  ২০৬: পুরুষ ২০৬ (অসংরক্ষিত ১০৩, ওবিসি ৫৭, তপশিলিজাতি ৩১, তপশিলি উপজাতি ১৫) এসবের মধ্যে প্রাক্তন সমরকর্মী ২১, মহিলা ০, সিআইএসএফ-এর এএসআই (এগজিঃ) শূন্যপদের সংখ্যা পাওয়া যায়নি।

বেতনক্রম: সিএপিএফের সাবইনস্পেক্টর(জিডি)(গ্রুপ-বি নন-গেজেটেড নন-মিনিস্টেরিয়াল এবং দিল্লি পুলিসের সাব-ইনস্পেক্টর (এগজিকিউটিভ)(গ্রুপ-সি নন-গেজেটেড পদের মূল বেতনক্রম ৩৫,৪০০-১,১২,৪০০ টাকা। সিএপিএফের অ্যাসিস্ট্যান্ট সাবইনস্পেক্টর পদের (গ্রুপ-সি নন-গেজেটেড) মূল বেতনক্রম ২৯,২০০-৯২,৩০০টাকা। অন্যান্য ভাতাও আছে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যাচেলর ডিগ্রি বা সমতুল পাশ (১ আগস্ট ২০১৮ তারিখের মধ্যে)। দিল্লি পুলিসের সাবইনস্পেক্টর (এগজিকিউটিভ) পদের ক্ষেত্রে পুরুষ প্রার্থীদের শারীরিক সক্ষমতার পরীক্ষার দিনের মধ্যে অবশ্যই হালকা গাড়ি এবং মোটর বাইক চালানোর লাইসেন্স পেয়ে থাকতে হবে, না থাকলে শারীরিক সক্ষমতার পরীক্ষার সুযোগ পাবেন না। ওই ড্রাইভিং লাইসেন্স যাঁদের নেই তাঁরা অন্যান্য পদের জন্য আবেদন করতে পারেন।

বয়সসীমা: ১ আগস্ট ২০১৮ তারিখ অনুযায়ী বয়স হতে হবে ২০ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ২-৮-১৯৯৩ থেকে ১-৮-৯৮)। তপশিলি প্রার্থীরা বয়সে ৫ বছর এবং ওবিসি প্রার্থীরা ৩ বছর পর্যন্ত ছাড় পাবেন। গ্রুপ বি এবং সি পদে: প্রাক্তন সেনাকর্মীদের ক্ষেত্রে প্রকৃত বয়স থেকে মিলিটারি সার্ভিসের মেয়াদকাল ও ৩ বছর বাদ দিয়ে যা দাঁড়াবে তত বছর ছাড় পাবেন। প্রাক্তন সেনাকর্মীদের ক্ষেত্রে প্রকৃত বয়স থেকে মিলিটারি সার্ভিসের মেয়াদকাল ৩বছর (ওবিসি হলে ৬ বছর এবং তপশিলি প্রাক্তন সেনাকর্মীদের ক্ষেত্রে ৮ বছর বাদ দিয়ে যা দাঁড়াবে তত বছর পর্যন্ত ছাড় পাবেন। গ্রুপ বি পদে: কেন্দ্রীয় সরকারি সিভিল কর্মচারীরা তিনবছরের নিয়মিত বেতনে কাজ করে থাকলে ৫ বছর পর্যন্ত ছাড় পাবেন। ওবিসি কেন্দ্রীয় সরকারি সিভিল কর্মচারী তিন বছরের নিয়মিত বেতনে কাজ করে থাকলে ৮ বছর পর্যন্ত ছাড় পাবেন। তপশিলি কেন্দ্রীয় সরকারি সিভিল কর্মচারী তিন বছরের নিয়মিত বেতনে কাজ করে থাকলে ১০ বছর পর্যন্ত ছাড় পাবেন। গ্রুপ সি পদে কেন্দ্রীয় সরকারি সিভিল কর্মচারী তিন বছরের নিয়মিত বেতনে কাজ করে থাকলে বয়সের ঊর্ধ্বসীমা ৪০ বছর। ওবিসি কেন্দ্রীয় সরকারি সিভিল কর্মচারী তিন বছরের নিয়মিত বেতনে কাজ করে থাকলে বয়সের ঊর্ধ্বসীমা ৪৩ বছর। তপশিলি কেন্দ্রীয় সরকারি সিভিল কর্মচারী তিন বছরের নিয়মিত বেতনে কাজ করে থাকলে বয়সের ঊর্ধ্বসীমা ৪৫ বছর। বিধবা / বিবাহবিচ্ছিন্না / আইনত পতিসঙ্গবিচ্ছিন্না মহিলারা আবার বিয়ে না করে থাকলে এবং বয়স ৩৫ বছর বা তার মধ্যে বয়স হলে আবেদন করতে পারবেন (তপশিলি এবং ওবিসি হলে যথাক্রমে ৪০ বছর এবং ৩৮ বছর বয়স পর্যন্ত আবেদন করা যাবে)।

শারীরিক মাপজোক: সাধারণ পুরুষ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চতা হতে হবে অন্তত ১৭০ সেমি, বুকের ছাতির মাপ না ফুলিয়ে ৮০সেমি এবং ফুলিয়ে ৮৫ সেমি। পার্বত্য অঞ্চলের সাধারণ পুরুষ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চতা থাকতে হবে ১৬৫ সেমি, বুকের ছাতির মাপ না ফুলিয়ে ৮০ সেমি এবং ফুলিয়ে ৮৫ সেমি। সব শ্রেণির তপশিলি উপজাতি পুরুষ প্রার্থীদের জন্য উচ্চতা হতে হবে ১৬২.৫ সেমি, বুকের ছাতির মাপ না ফুলিয়ে ৭৭ সেমি এবং ফুলিয়ে ৮২ সেমি। মহিলা প্রার্থীদের ক্ষেত্রে কেবল উচ্চতা থাকতে হবে ১৫৭ সেমি, পার্বত্য অঞ্চলের মহিলা প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ১৫৫ সেমি। তপশিলি উপজাতি মহিলা প্রার্থীদের উচ্চতা থাকতে হবে ১৫৪ সেমি। সব প্রার্থীদের ক্ষেত্রেই উচ্চতা অনুযায়ী উপযুক্ত ওজন থাকতে হবে। দৃষ্টি শক্তি থাকতে হবে চশমা বা কোনো প্রকার সংশোধন ছাড়া দুইচোখে ৬/৬ এবং ৬/৯। ভাঙা হাঁটু চ্যাটালো পায়ের পাতা প্রভতি কোনো প্রকার শারীরিক ত্রুটি বা প্রতিবন্ধকতা থাকলে আবেদন করা যাবে না।সুঠাম চেহারা এবং মানসিকভাবে সুস্থ সবল হতে হবে।কোনো ক্ষেত্রেই শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীরা আবেদন করবেন না।

শারীরিক সক্ষমতার পরীক্ষা: পুরুষ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ১৬ সেকেন্ডে ১০০ মিটার এবং ৬.৫ মিনিটে ১.৬ কিমি দৌড়াতে হবে। ৩ বারের চেষ্টায় অন্তত ৩.৬৫ মিটার লংজাম্প দিতে হবে। ৩ বারের চেষ্টায় অন্তত ১.২ মিটার হাইজাম্প দিতে হবে। ৩ বারের চেষ্টায় অন্তত ৪.৫ মিটার শটপুট (১৬ পাউন্ড) ছুড়তে হবে। মহিলা প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ১৮ সেকেন্ডে ১০০ মিটার এবং ৪ মিনিটে ৮০০ মিটার দৌড়তে হবে। ৩ বারের চেষ্টায় অন্তত ২.৭ মিটার (৯ ফুট) লংজাম্প দিতে হবে। ৩ বারের চেষ্টায় অন্তত ০.৯ মিটার (৩ ফুট) হাইজাম্প দিতে হবে।

প্রার্থী নির্বাচন: সমস্ত পদের ক্ষেত্রে প্রার্থী নির্বাচন করা হবে লিখিত পরীক্ষা শারীরিক সক্ষমতার পরীক্ষা ডাক্তারি পরীক্ষা ইন্টারভিউ/ পার্সোন্যালিটি টেস্টের মাধ্যমে। লিখিত পরীক্ষা পুরোটাই অবজেক্টিভ মাল্টিপল চয়েস টাইপের দুইপত্রে। কয়েকটি ব্যাচে ভাগ করে পরীক্ষা হবে ৪-৬-২০১৮ থেকে ১০-৬-২০১৮ তারিখের মধ্যে। যথাসময়ে অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড করে নিতে হবে। প্রথমপত্রে মোট ২০০ নম্বরের প্রশ্ন থাকবে। জেনারেল ইন্টেলিজেন্স ও রিজনিং বিষয়ে (৫০টি প্রশ্ন ৫০ নম্বর), জেনারেল নলেজ এবং জেনারেল অ্যাওয়্যারনেস বিষয়ে (৫০টি প্রশ্ন ৫০ নম্বর্‌, কোয়ান্টিটেটিভ অ্যাপ্টিটিউডে (৫০টি প্রশ্ন ৫০ নম্বর), ইংলিশ কম্প্রিহেনশনে (৫০টি প্রশ্ন ৫০ নম্বর)। প্রতিটি প্রশ্নের মান ১। সময় ২ ঘণ্টা। ১ম পত্রে সফল হলে ফিজিক্যাল এনডিওরেন্সও মেডিক্যল টেস্ট। তাতে সফল হলে ১-১২-১৮ তারিখে দ্বিতীয়পত্রে থাকবে ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ এবং কম্প্রিহেনশন (২০০টি প্রশ্ন ২০০ নম্বর)। সময় ২ ঘণ্টা। ইংরাজি ছাড়া অন্য বিষয়ের ক্ষেত্রে হিন্দি অথবা ইংরাজি যে-কোনো একটি ভাষায় পরীক্ষা দেওয়া যাবে। নেগেটিভ মার্কিং আছে। চারটি ভুল উত্তরের জন্য ১ নম্বর কাটা যাবে। পরীক্ষার বিস্তারিত সিলেবাস পাবেন নিচের ওয়েবসাইটে। পরীক্ষার সময় অ্যাডমিট কার্ড ছাড়াও যে-কোনো একটি সচিত্র পরিচয়পত্র সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে।

যোগাযোগের ঠিকানা: পশ্চিমবঙ্গ সিকিম আন্দামান-নিকোবর ওড়িশা ও ঝাড়গ্রামের প্রার্থীদের (অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড করতে অসুবিধা বা ওই জাতীয় কোনো সমস্যায়) যোগাযোগের ঠিকানা Regional Director (ER), Staff Selection Commission, 1st MSO Building (8th Floor), 234/4, Acharya Jagadish Chandra Bose Road, Kolkata, West Bengal– 700020′)।

পরীক্ষা কেন্দ্র এবং ব্র্যাকেটে কোড নম্বর: কলকাতা (৪৪১০), পোর্টব্লেয়ার (৪৮০২), গ্যাংটক (৪০০১), ভুবনেশ্বর (৪৬০৪), রাঁচি (৪২০৫)। বিহারের প্রার্থীদের (প্রয়োজনে যোগাযোগের ঠিকানা Regional Director (CR), Staff Selection Commission, 21-23 Lowther Road, Allahabad, Uttar Pradesh–211002) পরীক্ষা কেন্দ্র এবং ব্র্যাকেটে কোড নম্বর ভাগলপুর (৩২০১), পাটনা (৩২০৬), মজফফরপুর (৩২০৫)। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের প্রার্থীদের (প্রয়োজনে যোগাযোগের ঠিকানা Regional Director (NER), Staff Selection Commission, Housefed Complex, West End Block, Last Gate, Beltola Basistha Road, Dispur Guwahati, Assam–781006)পরীক্ষা কেন্দ্র ও ব্রাকেটে কোড নম্বর গুয়াহাটি, দিসপুর (৫১০৫), ইটানগর (৫০০১), ডিব্রুগড় (৫১০২), জোরহাট (৫১০৭), শিলচর (৫১১১), ইম্ফল (৫৫০১), শিলং (৫৪০১), আইজল (৫৭০১), কোহিমা (৫৩০২), আগরতলা (৫৬০১), চুরাচাঁদপুর (৫৫০২), তুরা (৫৪০২), গোয়ালপাড়া (৫১০৪), তেজপুর (৫১১২), লখিমপুর (৫১০৯)।

আবেদন ফি: আবেদন ফি ১০০ টাকা। অফলাইনে আবেদন ফি জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে http://ssconline2.gov.in  ওয়েবসাইট থেকে চালান ডাউনেলাড করে সেটি নিয়ে স্টেট ব্যাঙ্কের যে-কোনো শাখায় গিয়ে নগদে জমা দেওয়া যাবে শেষ তারিখ ৫ এপ্রিল ২০১৮ তবে চালান ডাউন লোড করা ডাবে ২ এপ্রিল বিকেল ৫টা পর্যন্ত। ডেবিট কার্ড ক্রেডিট কার্ড বা এস বি আই নেট ব্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমেও ফি জমা দেওয়া যেতে পারে। মহিলা, তপশিলি জাতি উপজাতি, প্রাক্তন সেনাকর্মী প্রার্থীদের ফি লাগবে না।

আবেদনেরপদ্ধতি: কেবল মাত্র অনলাইেন আবেদন করা যাবে। প্রথমে ওয়ান টাইম রেজিস্ট্রেশন করতে হবে http://ssc.nic.in ওয়েবসাইটে। এই রেজিস্ট্রেশন সারা বছরই যে-কোনো সময়ে করে রাখা যায় তখন যে রেজিস্ট্রেশন নম্বর ও পাসওয়ার্ড দেওয়া হয় তার সাহায্যে স্টাফ সিলেকশন কমিশনের যে-কোনো পরীক্ষায় অনলাইন দরখাস্ত করা যায়, তখন আর আলাদা করে প্রাথমিক তথ্যাবলি ও ফটো দিতে হয় না। এই রেজিস্ট্রেশনের পর  http://ssconline.nic.in ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন করতে হবে ২ এপ্রিল ২০১৮ বিকাল পাঁচটার মধ্যে। রেজিস্ট্রেশন আগে করা না থাকলে আবেদনের আগে প্রথমে সাম্প্রতিক কালের একটি পাসপোর্ট(৪ x ৫ সেমি মাপের রঙিন ফটো (৮-বিট জেপিজি ফরম্যাটে) এবং স্বাক্ষর (৮-বিট জেপিজি ফরম্যাটে) স্ক্যান করিয়ে রাখতে হবে। ফটো হতে হবে ৪ কেবি থেকে ১২ কেবির মধ্যে এবং রেজলিউশন হওয়া চাই ১০০/১২০ পিক্সেল। স্বাক্ষর হতে হবে ১ কেবি থেকে ১২ কেবির মধ্যে এবং রেজলিউশন হওয়া চাই ১৪০/ ৬০ পিক্সেল। রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রাথমিক তথ্যাবলি দেওয়ার পর স্ক্যান করা ছবি এবং স্বাক্ষর দরখাস্তের নির্দিষ্ট জায়গায় আপলোড করতে হবে। ফটো বাঞ্ছনীয়ত নীল ব্যাকগ্রাউন্ডে তোলা হতে হবে। অনলাইনে যদি কেউ একাধিকবার আবেদন করেন তা হলে যে আবেদনটি সম্পূর্ণ হয়েছে (প্রথম এবং দ্বিতীয় ধাপ) সেটি গ্রহণ করা হবে। একই ছবির আরও ৩টি পাসপোর্ট মাপের কপি তৈরি রাখবেন পরীক্ষার দিনে নিয়ে যেতে হবে। একই ছবির আরও ১০টি কপি যাতে পরীক্ষার সমস্ত পর্ব না মেটা পর্যন্ত চাওয়া মাত্র পাওয়া যায় তার ব্যবস্থা রাখবেন।

 

দরখাস্তে নির্দিষ্ট কলামে নিজের পছন্দ অনুযায়ী পদের নাম জানানোর জন্য পদের কোড নম্বর লিখতে হবে সেগুলি হল: পোস্ট কোড এ দিল্লি পুলিসে সাবইনস্পেক্টর। পোস্ট কোড বি বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সে সাবইনস্পেক্টর। পোস্ট কোড সি সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সে সাবইনস্পেক্টর। পোস্ট কোড ডি সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিস ফোর্সে সাবইনস্পেক্টর। পোস্ট কোড ই ইন্দো-টিবেটান বর্ডার পুলিস ফোর্সে সাবইনস্পেক্টর(এর কোনো শূন্যপদ ঘোষিত হয়নি)। পোস্ট কোড এফ সশস্ত্র সীমাবলে সাবইনস্পেক্টর। পোস্ট কোড জি সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সে অ্যাসিস্ট্যান্ট সাবইনস্পেক্টর।

দরখাস্তে তপশিলি ইত্যাদি ক্যাটেগরি নম্বর কী লিখবেন তা ফর্মের মধ্যেই বলা আছে সেইমতো লিখতে হবে। তপশিলি  ওবিসি প্রভৃতি সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীদের বয়সের ছাড়ের ক্ষেত্রে সুবিধা নেওয়ার জন্য নির্দিষ্ট কলামে যে কোড নম্বর দরখাস্তে উল্লেখ করতে হবে তা হল তপশিলি (০১), ওবিসি (০২), প্রাক্তনসেনাকর্মী (০৩), গ্রুপ-বি পদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের অসামরিক কর্মী (অন্তত ৩ বছর নিয়মিত বেতনে নিরবচ্ছিন্ন কাজ করে থাকলে) (০৪), ওই তঃপঃ (০৫), সিআইএসএফ-এ এএসআই পদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের অসামরিক কর্মী (অন্তত ৩ বছর নিয়মিত বেতনে নিরবচ্ছিন্ন কাজ করে থাকলে) (০৬), ওই তপঃ (০৭), গ্রুপ-সি পদের জন্য বিধবা/ ডিভোর্সি/ আইনত বিবাহ বিচ্ছিন্না মহিলারা আবার বিয়ে না করে থাকলে(০৯), ওই তপঃ (১০), দিল্লি পুলিসের ক্ষেত্রে বিভাগীয় প্রার্থীদের ক্ষেত্রে (১১), ওই ওবিসি প্রার্থীদের ক্ষেত্রে(১২), ওই তপশিলি প্রার্থীদের ক্ষেত্রে(১৩)।

সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রার্থীরা মুসলিম বা শিখ বা খ্রিস্টান বা পার্শি বা বৌদ্ধ বা জৈন উল্লেখ করতে পারেন দরখাস্তের নির্দিষ্ট কলামে।

অন্যান্য প্রাসঙ্গিক কোডও ওয়েবসাইটে দেওয়া আছে।

আবেদনের পদ্ধতি সহ বিস্তারিত বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যাবে http://ssconline.nic.in ওয়েবসাইটে।

 

 

One thought on “কেন্দ্রীয় পুলিস বাহিনীগুলিতে ১,২২৩ সাবইনস্পেক্টর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *