fbpx

পুরোপুরি অনলাইনে করা যাবে ইউজিসি স্বীকৃত ডিগ্রি/ডিপ্লোমা

 

দেশি-বিদেশি বহু বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রতিষ্ঠানকে দেখা যায় অনলাইনে ডিগ্রি/ডিপ্লোমা কোর্স করায় এবং তাদের বিজ্ঞাপন দেখে ভর্তিও হয়ে যান বহু উচ্চশিক্ষার্থী। বিশেষত যাঁরা কোথাও কর্মরত বা অন্য কোনো কোর্স করছেন তাঁদের পক্ষে এই জাতীয় কোর্স হাতে চাঁদ পাবার শামিল। নতুন চাকরি পাওয়াই হোক বা বর্তমান চাকরিতে পদোন্নতির সুযোগের জন্য আরেকটু বড় পাশ দিতেই হবে। এরকম নানা স্বপ্নে ভিড় বাড়ছে অনলাইন কোর্সের পথে।

এরকম শিক্ষার্থীদের জন্য সুখবর আছে। এখনও পর্যন্ত এ জাতীয় পুরোপুরি অনলাইন কোর্সের ডিগ্রি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)-এর অনুমোদিত নয়, তাই সেই ডিগ্রির জোরে সরকারি চাকরির পরীক্ষা বা জয়েন্ট এন্ট্রান্স, নেট-সেট ইত্যাদি দেওয়া যায় না, সরকারি অফিসে পদোন্নতি বা বিভাগীয় পরীক্ষাতেও এরকম স্বীকৃতিহীন ডিগ্রি গ্রাহ্য হয় না। চলছে নানান অসদুপায় অবলম্বনও, যেমন বিজ্ঞাপন অনুযায়ী পুরোপুরি “অনলাইন” কোর্স করিয়েও সার্টিফিকেটে লেখা হচ্ছে না অনলাইন বলে। কোথাও আবার, নামমাত্র “মুখোমুখি ক্লাস”-এর ব্যবস্থা করে পুরোপুরি অনলাইন রেখে ডিস্ট্যান্স/ওপেন ইউনিভার্সিটির মতো দেখানো হচ্ছে। কোথাও যুক্তি, কোর্স চাকরির জন্য স্বীকৃত না হলেও পড়ানো হচ্ছে বিশ্বায়নের কথা মাথায় রেখে।

কিন্তু অসদুপায় আর বেশিদিন নয়। ইউজিসি অনলাইন ডিগ্রি-ডিপ্লোমা কোর্সের স্বীকৃতির জন্য নতুন নিয়ম তৈরি করতে চলেছে। এখন পর্যন্ত যে নিয়ম চালু আছে, তাতে কোনো বিশ্ববিদ্যালয় তাদের কোনো কোর্স মেটিরিয়ালের ২০ শতাংশ অনলাইনে করাতে পারে সরকারের নবগঠিত “স্বয়ম’’ প্রতিষ্ঠানের এমওওসিজ (ম্যাসিভ ওপেন অনলাইন কোর্সেস) ব্যবস্থার মাধ্যমে। কিন্তু পুরো কোর্স অনলাইনে করানোর জন্য কোনো অনুমোদন ইউজিসি এখনও দেয় না।

ইউজিসি নতুন যে ব্যবস্থা আনতে চলেছে তাতে পুরো কোর্সই অনলাইনে করা যাবে। ডিগ্রি, ডিপ্লোমা, পিজি কোর্স। সেই ডিগ্রি-ডিপ্লোমা সরকারি চাকরির পরীক্ষায় গ্রাহ্য হবে মুক্তবিশ্ববিদ্যালয়/দূরশিক্ষার অনুরূপ স্বীকৃত কোর্সের মতোই। তবে কারা সেই কোর্স করাতে পারবে, কী-কী কোর্স করানো যাবে না সেবিষয়ে কিছু শর্ত আছে। যেমন:

এই পুরোপুরি অনলাইন কোর্স চালানোর জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটিকে নাক (এনএএসি)-এর অনুমোদিত এবং তাদের মূল্যায়নে ৪ পয়েন্ট স্কেলে ৩.২৫ স্কোর অর্জন করে থাকতে হবে। পড়াতে হবে ইউজিসির নির্ধারিত মান বজায় রেখে।

যে কোর্সগুলি অনলাইনে পড়ানো যাবে না সেগুলি হল: ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিসিন, ডেন্টাল, ফার্মাসি, নার্সিং, আর্কিটেকচার, ফিজিওথেরাপি।

যেখানে যা পড়ানো যাবে সেই পঠন-পাঠন কেন্দ্রে থাকতে হবে উপযুক্ত অনলাইন প্রযুক্তিতে সুসজ্জিত ব্যবস্থা। সবকিছুই হবে কম্পিউটারভিত্তিক যাচাইয়ে মোড়া– আধার নম্বর মেলানো, বিভিন্ন বিষয়ে ওয়েবক্যাম-স্ক্রিন ক্যাপচার-লাইভ অডিও-ভিডিওর মাধ্যমে তদারকি, সম্ভব হলে পরীক্ষার সময়েও নজরদারি।

এই নতুন ব্যবস্থা চালু হবে “দ্য ইউনিভার্সিটি গ্র্যান্টস কমিশন (অনলাইন এডুকেশন) রেগুলেশন্স, ২০১৭” (বা ২০১৮) আইন পাশ হয়ে সরকারি গেজেটে প্রকাশিত হলে। কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের সম্মতিও পাওয়া গেছে। নেওয়া হয়েছে বিভিন্ন মহলের মতামতও।

এই ব্যবস্থা চালু হলে ইউজিসি স্বীকৃত অনলাইন কোর্সে ভর্তি হওয়া, কাউন্সেলিং, পড়াশোনা করা, টিউটোরিয়াল, পরীক্ষা, ফি দেওয়া– সবই চলবে অনলাইনে, ছাত্র-ছাত্রীকে প্রতিষ্ঠানে হাজিরা দিতে হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *