fbpx

এসএসসির পরীক্ষায় অসদুপায় ১৯ রকম, শাস্তি ৪ রকম

চাকরির পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন কত রকমের হতে পারে এবং তারমধ্যে কোনটার জন্য কী শাস্তি দেওয়া হবে তার একটি সংশোধিত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে স্টাফ সিলেকশন কমিশন (F.No. 1/10/2017-C.II(P.II))। চাকরির পরীক্ষায় অসদুপায় কমানোর জন্যই এই কঠোরতর ব্যবস্থা। এই নিয়মগুলি চালু হল গত ১ জুন থেকেই। অন্যান্য চাকরির পরীক্ষায় শাস্তি বিধানের রকমফের থাকলেও অপরাধের তালিকা প্রায় একই রকম হয়ে থাকে, কোথাও তালিকা কিছু ছোটো, কোথাও কিছু বড়, শাস্তিবিধানও বিভিন্ন রকম।

স্টাফ সিলেকশন কমিশনের ১৯ দফা শাস্তির এই নববিধানে বলা হয়েছে নিচের কোনো অসদুপায় অবলম্বন করলে কমিশনের সমস্ত রকম পরীক্ষায় বসার সুযোগ থেকে বহিষ্কার করা হবে অপরাধবিশেষে ২ থেকে ৭ বছর পর্যন্ত। যেমন:

১. পরীক্ষা সংক্রান্ত কোনো কিছু যেমন ওএমআর শিট, রাফ শিট, অ্যাডমিশন সার্টিফিকেটের কমিশনের কপি, আন্সার শিট ইত্যাদি পরীক্ষাকক্ষ থেকে বাইরে নিয়ে যাওয়া হলে বা পরীক্ষা চলাকালীন তা কমিশন-নিযুক্ত ব্যক্তি ছাড়া অন্য কাউকে দিলে শাস্তি হবে কমিশনের কোনো পরীক্ষায় বসার সুযোগ থেকে ২ বছরের জন্য বহিষ্কার।

২. পরীক্ষা পরিচালনার কাজে যুক্ত কেউ যেমন সুপারভাইজার, ইনভিজিলেটর, সিকিউরিটি গার্ড, কমিশনের প্রতিনিধি ইত্যাদি কারও সঙ্গে কোনোভাবে দুর্ব্যবহার, ভীতিপ্রদর্শন, হুমকি দেওয়া ইত্যাদি করলে ওপরের মতোই শাস্তি হবে, তবে ৩ বছরের জন্য।

৩. পরীক্ষা পরিচালনায় কোনোরকম বাধা দিলে বা অন্য পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা না দিতে প্ররোচিত বা বাধ্য করলেও ওপরের মতো ৩ বছরের জন্য বহিষ্কার।

৪. অসত্য বা ভুল তথ্য পেশ করা, বাস্তব তথ্য গোপন করা, জাল প্রমাণপত্র দাখিল করা ইত্যাদির ক্ষেত্রেও ওপরের মতো ৩ বছরের জন্য বহিষ্কার।

৫. নিজের প্রার্থিপদের জন্য কোনো নিয়মবহির্ভূত বা অনৈতিক উপায়ে কারও সমর্থন বা প্রভাব কাজে লাগালে ওপরের মতোই ৩ বছরের জন্য বহিষ্কার।

৬. মোবাইল ফোন সুইচ-অন বা সুইচ-অফ অবস্থায় অনুমোদিত জায়গার বাইরে রাখলে ওপরের মতোই ৩ বছরের জন্য বহিষ্কার।

৭. একই পরীক্ষা নিয়মবহির্ভূত ভাবে একাধিকবার দিতে গেলে ওপরের মতোই ৩ বছরের জন্য বহিষ্কার।

৮. নিজে একই পরীক্ষা পরিচালনার সঙ্গে কোনোভাবে যুক্ত হওয়া সত্ত্বেও কেউ সেই পরীক্ষায় অবতীর্ণ হলে ওপরের মতোই ৩ বছরের জন্য বহিষ্কার।

৯. পরীক্ষা সংক্রান্ত পরিকাঠামো বা সামগ্রী-সরঞ্জামাদি নষ্ট করলে ওপরের মতোই বহিষ্কার, তবে ৫ বছরের জন্য।

১০. জাল অ্যাডমিট কার্ড, পরিচয়পত্র ইত্যাদি নিয়ে পরীক্ষা দিতে গেলে ওপরের মতোই ৫ বছরের জন্য বহিষ্কার।

১১. আগ্নেয়াস্ত্র বা অন্য কোনোরকম অস্ত্র নিয়ে পরীক্ষা দিতে গেলে ওপরের মতোই ৫ বছরের জন্য বহিষ্কার।

১২. পরীক্ষা পরিচালনার কাজে যুক্ত কেউ যেমন সুপারভাইজার, ইনভিজিলেটর, সিকিউরিটি গার্ড, কমিশনের প্রতিনিধি ইত্যাদি কাউকে কোনোভাবে আঘাত, বলপ্রয়োগ, শারীরিক ক্ষতিসাধন ইত্যাদি করলে ওপরের মতোই বহিষ্কার, তবে ৭ বছরের জন্য।

১৩. পরীক্ষা পরিচালনার কাজে যুক্ত কাউকে কোনো রকম অস্ত্র/আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে ভয় দেখালে/হুমকি দিলে ৭ বছরের জন্য বহিষ্কার।

১৪. পরীক্ষাকক্ষে অসদুপায় অবলম্বন করলে যেমন কাগজ বা শরীরের কোনো অংশ ইত্যাদি অননুমোদিত কিছু থেকে লেখা কপি করলে ৭ বছরের জন্য বহিষ্কার।

১৫. পরীক্ষাকক্ষে কোনো ব্লু টুথ ডিভাইস, স্পাই ক্যামেরা বা অন্য কোনো বৈদ্যুতিন সরঞ্জাম সঙ্গে থাকলে ৭ বছরের জন্য বহিষ্কার।

১৬. নিজে অন্য কেউ সেজে পরীক্ষা দিতে এলে বা অন্য কেউ সাজা কাউকে দিয়ে পরীক্ষা দেওয়ালে ৭ বছরের জন্য বহিষ্কার।

১৭. প্রশ্নপত্র বা পরীক্ষার সামগ্রী, ল্যাব ইত্যাদির স্ন্যাপশট নিলে বা ভিডিও করলে ৭ বছরের জন্য বহিষ্কার।

১৮. পরীক্ষার সঙ্গে যুক্ত কোনো টার্মিনালে কোনো দূরনিয়ন্ত্রিত ডেস্কটপ সফটওয়্যার/অ্যাপস/ল্যান/ভ্যান ইত্যাদির সংযোগ ঘটালে ৭ বছরের জন্য বহিষ্কার।

১৯. পরীক্ষার আগে বা পরীক্ষা চলাকালীন বা পরীক্ষার পরে কখনও পরীক্ষার সার্ভার/ডেটা/সিস্টেম হ্যাক বা তছনছ বা ওলট-পালটের চেষ্টা হলে ওপরের মতো ৭ বছরের জন্য বহিষ্কার।

কমিশনের এই বিজ্ঞপ্তি দেখা যাবে এই লিঙ্কে: http://ssc.nic.in/SSC_WEBSITE_LATEST/notice/notice_pdf/Malpractices_in_Examinations_01062018.pdf

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *