fbpx

ব্যাঙ্ক অব বরোদায় ৬০০ পিও

ব্যাঙ্ক অব বরোদায় ৬০০ প্রবেশনারি অফিসার (জুনিয়র ম্যানেজমেন্ট গ্রেড/স্কেল ওয়ান) নিয়োগ করা হবে। ব্যাঙ্কিং অ্যান্ড ফিনান্সে ৯ মাসের পোস্ট গ্র্যাজুয়েট সার্টিফিকেট কোর্সে প্রশিক্ষণ দিয়ে নিয়োগ করা হবে। মণিপাল স্কুল অব ব্যাঙ্কিং ট্রেনিং করাবে। সফলভাবে কোর্স শেষ হয়ে গেলে ব্যাঙ্কিং অ্যান্ড ফিনান্সে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট সার্টিফিকেট দেওয়া হবে এবং প্রবেশনারি অফিসার পদে নিয়োগ করা হবে। কাজে যোগ দেওয়ার পর তিন মাসের ‘ওয়ার্ক ইন্টিগ্রেটেড লার্নিং’ অন জব ট্রেনিং নিতে হবে ব্যাঙ্ক অব বরোদার যে-কোনো শাখায়, ট্রেনিং শেষে মণিপাল অ্যাকাডেমি অব হায়ার এডুকেশনের তরফ থেকে ব্যাঙ্কিং অ্যান্ড ফিনান্সে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা দেওয়া হবে।

শূন্যপদের বিন্যাস: মোট শূন্যপদ ৬০০ (অসংরক্ষিত ৩০৩, তপশিলি জাতি ৯০, তপশিলি উপজাতি ৪৫, ওবিসি ১৬২)।

বয়সসীমা: ২ জুলাই ২০১৮ তারিখের হিসেবে বয়স হতে হবে ২০-২৮ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ৩ জুলাই ১৯৯০ থেকে ২ জুলাই ১৯৯৮)। সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

কোর্স ফি: তিন লাখ পঁয়তাল্লিশ হাজার টাকা। নির্বাচিত হলে ব্যাঙ্ক অব বরোদা থেকে এডুকেশন লোন নিতে পারবেন।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ন্যূনতম ৫৫ শতাংশ (তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ) নম্বর নিয়ে যে-কোনো শাখায় গ্র্যাজুয়েশন। শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পূর্ণ হতে হবে ২ জুলাই ২০১৮ তারিখের হিসেবে।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: অনলাইন পরীক্ষা, গ্রুপ ডিসকাশন ও ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। অনলাইন পরীক্ষায় থাকবে রিজনিং অ্যান্ড কম্পিউটার অ্যাপ্টিটিউড (৫০টি প্রশ্ন, ৭৫ নম্বর), জেনারেল/ ইকোনমি/ ব্যাঙ্কিং অ্যাওয়্যারনেস (৪০টি প্রশ্ন, ৪০ নম্বর), কোয়ান্টিটেটিভ অ্যাপ্টিটিউড (৪০টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ (৩৫টি প্রশ্ন, ৩৫ নম্বর)। মোট ১৬৫টি প্রশ্ন, মোট নম্বর ২০০। সময় ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিট।

ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ (লেটার রাইটিং অ্যান্ড এসে)-তে দুটি প্রশ্ন থাকবে, ৫০ নম্বর, সময় ৩০ মিনিট। অবজেক্টিভ টেস্টে নেগেটিভ মার্কিং থাকবে, প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর করে কাটা হবে। লেখা পরীক্ষায় পাশ করলে গ্রুপ ডিসকাশন ও পার্সোনাল ইন্টারভিউ। গ্রুপ ডিসকাশন/ ইন্টারভিউয়ের সময় কল লেটার, অনলাইন পূরণ করা আবেদনপত্রের প্রিন্ট-আউট, সচিত্র পরিচয়পত্র ও যাবতীয় প্রমাণপত্রাদি দেখাতে হবে।

পরীক্ষাকেন্দ্র: পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে বৃহত্তর কলকাতা, আসানসোল, বর্ধমান, বহরমপুর, দুর্গাপুর, হুগলি, হাওড়া, কল্যাণী, শিলিগুড়ি। অন্যান্য রাজ্যের পরীক্ষাকেন্দ্র সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে ওয়েবসাইট থেকে।

আবেদনের ফি: ৬০০ টাকা (আবেদনের ফি+ ইন্টিমেশন চার্জ)। তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে আবেদনের ফি দিতে হবে না, শুধুমাত্র ইন্টিমেশন চার্জ বাবদ ১০০ টাকা দিতে হবে। ডেবিট কার্ড (রুপে/ ভিসা/ মাস্টার কার্ড/ ম্যাস্ট্রো), ক্রেডিট কার্ড, ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং, আইএমপিএস, ক্যাশ কার্ড/ মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে ফি দেওয়া যাবে। ট্র্যানজ্যাকশন সম্পূর্ণ হলে একটি ই-রিসিট পাওয়া যাবে, ই-রিসিটের প্রিন্ট-আউট নিয়ে রাখতে হবে। অনলাইন টেস্ট ও ইন্টারভিউয়ের সময় ই-রিসিটের কপি দেখাতে হবে। আবেদনের ফি দেওয়া যাবে ২ জুলাই ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত।

আবেদনের পদ্ধতি: www.bankofbaroda.com ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করার আগে ছবি ও স্বাক্ষর স্ক্যান করে রাখতে হবে। অনলাইন আবেদন করার সময় নির্দিষ্ট স্থানে আপলোড করতে হবে। সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট মাপের রঙিন ছবি হতে হবে, ডাইমেনশন ২০×২৩০ পিক্সেল (বাঞ্ছনীয়ত), মাপ হতে হবে ২০-৫০ কেবির মধ্যে। সাদা কাগজে কালো কালির পেন দিয়ে স্বাক্ষর করতে হবে, ডাইমেনশন ১৪০×৬০ পিক্সেল (বাঞ্ছনীয়ত), মাপ হতে হবে ১০-২০ কেবির মধ্যে। স্ক্যানার রেজলিউশন ২০০ ডিপিআই। জেপিজি বা জেপেগ ফরম্যাটে স্ক্যান করতে হবে। অনলাইন আবেদন করা যাবে ২ জুলাই ২০১৮ তারিখের মধ্যে। অনলাইন পরীক্ষার জন্য কললেটার ডাউনলোড করা যাবে ১৮ জুলাই ২০১৮ তারিখ থেকে। অনলাইন পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৮। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

 

 

 

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *