fbpx

বিএড পাঠ্যক্রমে পরিবর্তন আসছে আগামী বছর থেকে

এত দিন গ্র্যাজুয়শেন করার পরই বিএড করা যেত। এবং শিক্ষক হয়ে ওঠার পেশায় শিক্ষণ পাঠ্যক্রম হিসাবে বিএড করা থাকলে অগ্রাধিকার পাওয়া যেত। কিন্তু আগামী বছর থেকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে নিতে ইচ্ছুক ছাত্রছাত্রীরা স্নাতক নয়, উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেই বাণিজ্য, কলা বা বিজ্ঞান শাখায় চার বছরের বিএড কোর্স করে শিক্ষকতার পেশায় প্রবেশ করতে পারবে।এই পাঠ্যক্রম চার বছরের। চার বছরের এই পাঠ্যক্রম শেষ হলে সংশ্লিষ্ট শাখায় শিক্ষকতা করতে পারবেন সফল ছাত্রছাত্রীরা। ন্যাশনাল কাউন্সিল অব টিচার্স এডুকেশন বিল’ নিয়ে এক আলোচনায় শিক্ষক প্রশিক্ষণের জন্য নতুন পাঠ্যক্রমের চালু করার সিদ্ধান্তের কথা জানান প্রকাশ জাভডেকর। গত বছর অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি তাঁর বাজেট বক্তৃতায় এই সংস্কার বা বিএড প্রশিক্ষণের নতুন ব্যবস্থার কথা বলেছিলেন। সেই সূত্র ধরেই এবার চালু হতে চলেছে ইনটিগ্রেটেড টিচার ট্রেনিং প্রোগ্রাম।  আগামী  বছর থেকেই চার বছরের এই  পাঠ্যক্রম শুরু হয়ে যাবে বলে তিনি জানান। বিএড পাঠ্যক্রমের এই সংস্কারে ছাত্রছাত্রীরা প্রথম থেকেই সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য তৈরি করে এগোতে পারবেন বলে জানানো হচ্ছে। আগামী দিনে শুধুমাত্র যারা শিক্ষকতাকেই পেশা হিসেবে নিতে চান, সেইসব আগ্রহী ও সিরিয়াস স্টুডেন্টরাই এই প্রশিক্ষণ নিতে আসবেন। এনসিটিই সূত্রে বলা হয়েছে যে, এই পদক্ষেপটি নিশ্চিত করার একমাত্র উদ্দেশ্য গুরুত্বপূর্ণ ছাত্রছাত্রীরা ইঞ্জিনিয়ারিং বা ডাক্তারির অনুরূপ শিক্ষার প্রশিক্ষণের জন্য মনোনীত হয়ে নিজেদের তৈরি করে শিক্ষকতার পেশায় দক্ষ হয়ে উঠবেন। প্রসঙ্গত, উচ্চমাধ্যমিকের পরেই ৪ বছরের বিএবিএড, বিএসসিবিএড কোর্স নতুন কিছু নয়, দেশের রিজিওন্যাল ইনস্টিটিউটগুলিতে এই কোর্স বহুকাল ধরে আবাসিক ভাবে পড়ানো হয় এবং সেই ডিগ্রি সাধারণ বিএডের সমতুল বলে এনসিটিইর মান্যতাও পেয়ে আসছে। পূর্বাঞ্চলে রিজিওনাল ইন্সটিটিউট অব এডুকেশন ভুবনেশ্বরে। নতুন শিক্ষাবর্ষে বিএড কোর্স সবজায়গাতেই ৪ বছরের হবে কিনা, আবাসিক হবে না নিত্য যাতায়াত করে পড়া যাবে, নাকি দুরকমই থাকবে, পাশাপাশি ২ বছরের কোর্সও চালু থাকবে কিনা সে ব্যাপারে কিছু বলা হয়নি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *