fbpx

রেলের গ্ৰুপ ডি: ভিনরাজ্যে আসন বণ্টন নিয়ে ক্ষোভ পরীক্ষার্থীদের

৬২৯০৭ জন গ্ৰুপ ডি কর্মী নিযুক্ত করবে ভারতীয় রেলওয়ে বিভাগ। আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে চলেছে পরীক্ষা। ইতিমধ্যেই ধাপে-ধাপে আপলোড শুরু হয়েছে পরীক্ষার ই-কল লেটার। কিন্তু কল লেটার ডাউনলোড করার পরেই চিন্তায় পরে যান পরীক্ষার্থীদের একাংশ।

আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে যে পরীক্ষা শুরু হচ্ছে, তাতে আমাদের রাজ্য থেকে যে সমস্ত প্রার্থীরা আরআরবি কলকাতার জন্য আবেদন করেছিলেন, তাঁদের অনেকের পরক্ষার সিট পড়েছে ভুবনেশ্বর, বিহার, ঝাড়খণ্ডে। এখান থেকেই শুরু সমস্যা।

রেলওয়ে সূত্রের খবর, সম্প্রতি রেলের দুটি বৃহৎ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অ্যাসিস্ট্যান্ট লোকো পাইলট-টেকনিশিয়ান এবং রেলওয়ে গ্ৰুপ ডি পদে নিয়োগের জন্য প্রায় ৩ কোটি আবেদন জমা পড়েছিল, যার মধ্যে সঠিক ভাবে আবেদন গৃহীত হয়েছিল পৌনে ২ কোটির। ইতিমধ্যে লোকো পাইলট ও টেকনিশিয়ান পদের পরীক্ষা শেষ। গ্ৰুপ ডি পদের ক্ষেত্রেও প্রায় ১ কোটির ওপরে প্রার্থী পরীক্ষা দেবেন বলে খবর। অনেক ব্যাচে ভাগ করে পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে সারা দেশ জুড়ে। তারপরেও কেন আসন বণ্টন নিয়ে এরকম সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে সেই নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন পরক্ষার্থীরা।

এর আগে অ্যাসিস্ট্যান্ট লোকো পাইলট ও টেকনিশিয়ান পদের পরীক্ষার সময় রেল একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছিল সাধারণত মহিলা ও প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের জন্য  ১oo কিমির মধ্যে পরীক্ষার আসন বণ্টন করা হয়েছে, তার পরে বাদ-বাকিদের বণ্টন হয়েছে, এত পরিমাণ পরক্ষার্থী থাকার কারণে কিছু আসন বাইরে পড়তে পারে।

পরীক্ষার্থীদের একাংশ প্রশ্ন তুলছেন, এতগুলি ভাগে আলাদা-আলাদা দিনেই যখন পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে, তখন নির্দিষ্ট বাইরের রাজ্যে কেন আসন ফেলতে হচ্ছে? এটা ঠিক যে, কেন্দ্রে অন্যান্য পরীক্ষা যেমন সিজিএল, ইউপিএসসির অনেক পরীক্ষার ক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা এর তুলনায় অনেক কম। কিন্তু রেলের পরীক্ষা আজ নয়, এর আগেও ভিন রাজ্যে ফেলার ঘটনা রয়েছে। এমত অবস্থায় বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে রেলের পরীক্ষার্থীদের বহুল প্রতিবাদ করতে দেখা গেছে। তবে রেলের তরফে আসন বণ্টন নিয়ে ই কল-লেটার প্রকাশ করার পর সরকারি ভাবে কোনো বক্তব্য জানানো হয়নি।

আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর কলকাতা রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের অফিসে বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ কর্মসূচি পরীক্ষার্থীদের একাংশের। প্রসঙ্গত, এই বিষয়টি নিয়ে গতকাল থেকে জীবিকা দিশারী ফেসবুক পেজ-এ একটি ওপিনিয়ন পোল করে। তাতে দেখা গেছে ৬৩ শতাংশ মানুষ বলেছেন দূরে পরীক্ষার আসন বন্টনের জন্য “অসুবিধা হবে”, ৩৭ শতাংশ মানুষ বলেছেন “অসুবিধা হবে না”।

 

Rail, Rail Group D, Rail Group D Exam, Railway Recruitment 2018

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *