fbpx

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ : পরীক্ষার প্রশ্নোত্তর ভুলে সুবিধা পাবেন মামলাকারীরা

 

কোর্টের রায়ে সুফল পাবেন মামলাকারীরাই। প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় বেশ কিছু প্রশ্নে ও উত্তরপত্র মূল্যায়নে ভুল ছিল বলে মামলা করেছিলেন প্রায় পাঁচশো পরীক্ষার্থী। বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় গতকাল সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে রায় দিয়েছেন, যে প্রশ্নের উত্তর ভুল ছিল, বা প্রশ্নটিই ভুল ছিল সেগুলির উত্তর যাঁরা করেছেন তাঁদের সংশ্লিষ্ট প্রশ্নের ভিত্তিতে পুরো নম্বর দিতে হবে এবং সেটা যদি চাকরি পাওয়ার সমমানের হয়, তাহলে তাঁদের চাকরির সুযোগও দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের প্রাইমারি টেট ২০১৫ সালের ১১ অক্টোবর আয়োজিত হয়েছিল। ২০১৬-র আগস্টে ফল প্রকাশের পর নিয়োগপ্রক্রিয়াও দ্রুত শেষ করা হয়। কিন্তু প্রশ্নের বা উত্তরের ১১টি ভুল ছিল বলে দাবি করে আদালতে মামলা দায়ের করেন কয়েকশো পরীক্ষার্থী। আদালত বিশ্বভারতী বিদ্যালয়ের উপাচার্য সবুজকলি সেনের নেতৃত্বে গঠিত এক কমিটিকে অভিযুক্ত প্রশ্ন-উত্তরগুলি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেয়। কিছুদিন আগে এই কমিটি যে রিপোর্ট পেশ করে তাতে ৭ টি প্রশ্নের উত্তর ভুল ছিল বলে জানানো হয়। এর মধ্যে বাংলা বিষয়ের ৬টি এবং সাইকোলজি বিষয়ে ১টি প্রশ্ন ছিল। সেই প্রেক্ষিতেই আদালত জানিয়েছে, ওই প্রশ্নগুলির উত্তরদাতাদের পুরো নম্বর দিতে হবে। এক্ষত্রে মামলাকারীরা এই সুবিধাপ্রাপ্ত হবে। সুপ্রিম কোর্টের আগের একটি মামলায় রায় দিয়েছিল, কোনো প্রার্থী যদি নিজেকে বঞ্চিত মনে করেন তাহলে মামলা দায়ের করবেন, তাঁর অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিনি সুবিধা পাবেন, সেটা দেখে অন্য প্রার্থী পুনরায় মামলা দায়ের করলে সেই ফল পাওয়ার সুযোগ পাবেন না। সেই অনুযায়ী এই মামলাকারীরাই এক্ষেত্রে সুবিধা ভোগ করবেন।

মামলাকারীদের একাংশ বলছেন, ছয় নম্বর যোগ হলে অনেক প্রার্থীরই চাকরি পাওয়ার সুযোগ আছে। তবে বর্তমানে যাঁরা সফল হয়ে চাকরিরত অবস্থায় রয়েছেন, তাঁদের ওপর এতে কোনো প্রভাব পড়বে না, এই বিষয়টি আগেই জানিয়ে দিয়েছিল আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *