fbpx

ভালো সংখ্যক শূন্যপদ বাড়ার সম্ভাবনা আপার প্রাইমারিতে

আপার প্রাইমারি প্রার্থীদের জন্য আশার আলো। বেশ খানিকটা শূন্যপদ  বাড়তে  পারে আপার প্রাইমারি স্তরে।

স্কুল সার্ভিসের প্রার্থীরা প্রত্যেকেই জানেন, গত সপ্তাহে স্কুল শিক্ষা দপ্তরের একটি গুরুত্বপূর্ণ মিটিংয়ে রাজ্যের সমস্ত ডিআইদের সারা রাজ্যে কোথায় কত শূন্যপদ রয়েছে সে ব্যাপারে বিস্তৃত রিপোর্ট দিতে বলা হয় ৫ অক্টোবরের মধ্যে। স্কুল শিক্ষা দপ্তরের সূত্রে জানা যাচ্ছে, আপার  প্রাইমারি স্তরে শূন্যপদ বাড়ার সম্ভাবনা সমূহ।  এক্ষেত্রে সমস্ত শূন্যপদ বর্তমান যে নিয়োগ প্রক্রিয়া রয়েছে তার সঙ্গেই জুড়ে দেওয়া হবে নাকি নতুন টেট-এর পর নতুন বিজ্ঞপ্তিতে যোগ করা হবে সে বিষয়টি এখনও পরিষ্কার নয়।

২০১৬ সালে যে আপার প্রাইমারি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছিল তাতেই শূন্যপদ ছিল ১৪,০৮৮। গত দু বছরে আপার প্রাইমারির সেই নিয়োগ এখনও সম্পূর্ণ হয়নি। ফলে স্বাভাবিক নিয়মেই এই শূন্যপদ বেড়ে যাবে।  তার সঙ্গে গত কয়েক বছরে নতুন স্কুলের সংখ্যাও নেহাত কম নয়। প্রায় সাড়ে ৬ হাজার স্কুল হয়েছে এবং চালু স্কুলগুলিতে শিক্ষক পদের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। যেখান থেকে নতুন শূন্যপদ তৈরি হয়েছে বলে খবর। যা প্রায় সাত হাজারের কাছাকাছি। শূন্যপদ পুনর্মূল্যায়নের সময় বেরিয়ে এসেছে সেই তথ্য।

পুজোর আগে সর্বতোভাবে চেষ্টা করা হচ্ছে, নবম-দশম এবং একাদশ-দ্বাদশ স্তরের শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া এগিয়ে রাখার। এই দুই স্তরের কাজ শেষ হয়ে যাওয়ার পরেই আপার প্রাইমারি স্তরের কাজে  হাত দেওয়া হবে বলে স্কুল সার্ভিস কমিশন সূত্রে খবর। ফলত, দীর্ঘদিন অপেক্ষারত আপার প্রাইমারি স্তরের প্রার্থীদের কিছুটা স্বস্তির খবর আসছে বলে আশা করা যায়।  মাথায় রাখতে হবে, এরপরের এসএসসির আপার প্রাইমারি স্তরের নিয়োগে কিন্তু বিএড বা শিক্ষাকতার প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক হয়ে যাবে।

 

SSC, School Service Commission, SSC Vacancy, SSC Upper Primary

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *