fbpx

কেন্দ্রীয় সরকারের কয়েকশো স্টেনো নিয়োগ

সারা দেশে এবং দিল্লিতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন দপ্তর এবং অফিসে বেশ কয়েকশো শূন্যপদে স্টেনোগ্রাফার গ্রেড সি (গ্রুপ বি নন-গেজেটেড) ও গ্রেড ডি (গ্রুপ সি নন-গেজেটেড) নিয়োগ করা হবে। বিজ্ঞপ্তি নম্বর F.No.3/3/2018-(P&P-II)। প্রার্থী বাছাই করবে স্টাফ সিলেকশন কমিশন। শূন্যপদের সংখ্যা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। নিচের যোগ্যতার যে-কোনো ভারতীয় পুরুষ ও মহিলারা আবেদন করতে পারবেন। গ্রেড সি বা গ্রেড ডি যে-কোনো পদের জন্য বা দুই পদের জন্যই আবেদন করতে পারবেন। শ্রবণ-প্রতিবন্ধীরা এই পদের জন্য আবেদন করবেন না।

নিয়োগস্থল: গ্রেড সি পদের অধিকাংশ নিয়োগ হবে দিল্লিতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রক/ দপ্তরে। গ্রেড ডি পদের নিয়োগ হবে দেশের যে-কোনো রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রক/ দপ্তরে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: ১-১-২০১৯-এর মধ্যে কোনো স্বীকৃত বোর্ড বা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চমাধ্যমিক বা সমতুল পাশ। লিখিত পরীক্ষায় সফল হলে স্টেনোগ্রাফির স্কিলটেস্টেও সফল হতেই হবে, তাই স্টেনোগ্রাফির দক্ষতাও চাই। তবে লিখিত পরীক্ষার ফল বেরিয়ে স্কিল টেস্ট হতে যেহেতু এখনও অনেক সময় আছে, তাই যাঁরা স্টেনোগ্রাফি (ইংরেজি বা হিন্দি) জানেন না তাঁরাও ইতিমধ্যে শিখে নিতে পারবেন এমন সম্ভাবনা থাকলে আবেদন করতে পারেন। চাকরিতে নিযুক্ত হলে একভাষার স্টেনোগ্রাফি জানা প্রার্থীদের অন্যভাষার শর্টহ্যান্ডও শিখে নিতে হবে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে।

বয়সসীমা: ১-১-২০১৯ তারিখে বয়স হতে হবে গ্রেড ‘সি’ পদের জন্য ১৮-৩০ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ২-১-১৯৮৯ থেকে ১-১-২০০১), গ্রেড ‘ডি’ পদের জন্য ১৮-২৭ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ২-১-১৯৯২ থেকে ১-১-২০০১)। তপশিলি জাতি/ উপজাতি (কোড নং ০১), ওবিসি (কোড নং ০২) এবং শারীরিক প্রতিবন্ধী (কোড নং ০৩) প্রার্থীরা বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় যথাক্রমে ৫ বছর, ৩ বছর এবং ১০ বছর ছাড় পাবেন। এছাড়াও ওবিসি (প্রতিবন্ধী)(কোড নং ০৪) ও  তপশিলি জাতি/ উপজাতি (প্রতিবন্ধী)(কোড নং ০৫) প্রার্থীদের বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় যথাক্রমে ১৩ বছর এবং ১৫ বছর ছাড় দেওয়া হবে। প্রাক্তন সেনাকর্মীদের ক্ষেত্রে (কোড নং ০৬) প্রকৃত বয়স থেকে মিলিটারি সার্ভিসের মেয়াদকাল + ৩ বছর বাদ দিয়ে যা দাঁড়াবে তত বছর ছাড় পাবেন। শত্রুভাবাপন্ন দেশের বৈরিতায় বা শান্তিবিঘ্নিত এলাকায় পঙ্গু হয়ে চাকরি হারানো প্রাক্তন সেনাকর্মীরা (কোড নং ০৮) ৩ বছর এবং ওই রকম তপশিলি প্রাক্তন সেনাকর্মীদের (কোড নং ০৯) ক্ষেত্রে ৮ বছর ছাড় দেওয়া হবে। কেবল গ্রুপ-সি পদের ক্ষেত্রে  কেন্দ্রীয় অসামরিক কর্মীরা অন্তত ৩ বছর নিয়মিত পদে অবিচ্ছিন্নভাবে কর্মরত (কোড নং ১০) হলে এবং একইভাবে তপশিলি (কোড নং ১১)  হলে যথাক্রমে ৪০ ও ৪৫ বছর বয়স পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। বিধবা/ বিবাহবিচ্ছিন্না/আইনত পতিসঙ্গবিচ্ছিন্না মহিলারা (কোড নং ১২) আবার বিয়ে না করে থাকলে এবং বয়স ৩৫ বা তার মধ্যে হলে আবেদন করতে পারবেন (তপশিলি হলে (কোড নং ১৩) যথাক্রমে ৪০ বছর এবং ৩৮ বছর বয়স পর্যন্ত আবেদন করা যাবে)। সামরিক সার্ভিস ক্লার্ক ও ছাঁটাই হওয়া জনগণনা কর্মীদের জন্য শর্তসাপেক্ষে বয়সের ছাড় আছে, নিচের লিঙ্কে বিজ্ঞপ্তিতে দেখা যাবে। প্রাক্তন সমরকর্মীদের পুত্র-কন্যা ও পোষ্যরা বয়সের ছাড়ের সুবিধা পাবেন না।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: লিখিত পরীক্ষা এবং স্কিল টেস্টের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। কম্পিউটার ভিত্তিক লিখিত পরীক্ষা হবে ১ থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ পর্যন্ত, বিভিন্ন ব্যাচে ভাগ করে। কম্পিউটারভিত্তিক ওই ২ ঘণ্টার পরীক্ষায় থাকবে অবজেক্টিভ মাল্টিপল টাইপের জেনারেল ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড রিজনিং (৫০ প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), জেনারেল অ্যাওয়্যারনেস (৫০ প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড কম্প্রিহেনশন (১০০ প্রশ্ন, ১০০ নম্বর)। প্রতি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ হারে কাটা যাবে।

লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা স্টেনোগ্রাফির স্কিল টেস্টে ডাক পাবেন। গ্রেড সি এবং গ্রেড ডি-র প্রার্থীদের যথাক্রমে মিনিটে ১০০ শব্দের গতিতে ইংরেজি বা ৮০ শব্দের গতিতে হিন্দিতে ১০ মিনিট ডিকটেশন নিতে হবে। তারপর ওই ডিকটেশনটি কম্পিউটারে গ্রেড ডি পদের ক্ষেত্রে ইংরেজি এবং হিন্দিতে যথাক্রমে ৫০ মিনিট ও ৬৫ মিনিটে এবং গ্রেড সি পদের ক্ষেত্রে ইংরেজি এবং হিন্দিতে যথাক্রমে ৪০ মিনিট এবং ৫৫ মিনিটে টাইপ করতে হবে। দরখাস্তে স্টেনোগ্রাফি টেস্টের মাধ্যম (ইংরেজি/হিন্দি) উল্লেখ করতে হবে। স্কিল টেস্টে পাশ করলে কেবল লিখিত পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী চূড়ান্ত মেধাতালিকা ঘোষিত হবে। অনলাইন পরীক্ষার জন্য অ্যাডমিট কার্ড সময়মতো ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে, আলাদা করে কাউকে পাঠানো হবে না।

পরীক্ষাকেন্দ্র: পূর্বাঞ্চলের অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশা, ঝাড়খণ্ড, সিকিম ও আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের প্রার্থীদের জন্য পরীক্ষাকেন্দ্র হবে এইসব জায়গায় (ব্র্যাকেটে কোড নম্বর): Kolkata (4410), Malda (4412), Siliguri (4415), Jalpaiguri (4408), Gangtok (4001), Ranchi (4205), Bhubaneshwar (4604), Cuttack (4605), Sambalpur (4609), Port Blair (4802)।

পূর্বাঞ্চলের অফিসের ঠিকানা: Regional Director (ER), Staff Selection Commission, 1st MSO Building, (8th Floor), 234/4, Acharya Jagadish Chandra Bose Road, Kolkata, West Bengal-700020. ওয়েবসাইট: www.sscer.org  

আবেদনের ফি: আবেদনের ফি ১০০ টাকা। নিচের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা চালানের মাধ্যমে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার যে-কোনো শাখায় ফি দেওয়া যাবে। এছাড়া ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ড ও এসবিআই নেট ব্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমেও ফি দেওয়া যাবে। অনলাইনে আগামী ২১ নভেম্বর বিকেল ৫টার মধ্যে বা অফলাইনের ক্ষেত্রে (২১ নভেম্বর বিকেল ৫টার মধ্যে চালান ডাউনলোড করে রাখলে) ২৬ নভেম্বর ব্যাংকের কাজের সময়ের মধ্যে। তপশিলি জাতি/ উপজাতি, শারীরিক প্রতিবন্ধী, প্রাক্তন সেনাকর্মী ও মহিলা প্রার্থীদের আবেদনের ফি দিতে হবে না।

আবেদনের পদ্ধতি: https://ssc.nic.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। প্রথমে অনলাইন রেজিস্ট্রেশ করতে হবে, তারপর ইউজার নেম (ইমেল আইডি) ও সেই রেজিস্ট্রেশনের পাসওয়ার্ড দিয়ে আবার ঢুকে ‘অ্যাপ্লাই’ লিঙ্কে Stenographer Grade ‘C’ & ‘D’ Examination 2018-এ আবদন করতে হবে। আগে রেজিস্ট্রেশন করা থাকলে নতুন করে রেজিস্ট্রেশন করতে হয় না। রেজিস্ট্রেশনের পদ্ধতি আমরা ইতিমধ্যে আলোচনা করেছি http://jibikadishari.co.in/?p=6634 লিঙ্কে। অনলাইন আবেদন করার আগে আবেদনের খুঁটিনাটি ও ফর্ম ফিলাপের পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন ওয়েবসাইটেই। দরখাস্তে আপলোড করার জন্য সাদা কাগজে কালো কালিতে করা নিজের স্বাভাবিক সই ও সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট মাপের রঙিন ছবির জেপেগ ফরম্যাটে স্ক্যান করা ইমেজ তৈরি রাখতে হবে, ছবি হতে হবে ২০-৫০ কেবির মধ্যে, মাপ চওড়ায় ৩.৫, উচ্চতায় ৪.৫ সেমি।স্বাক্ষর ১০-২০ কেবির মধ্যে, মাপ চওড়ায় ৩.৫, উচ্চতায় ৩ সেমি। আধার কার্ড বা তার জন্য রেজিস্ট্রেশনের নম্বর না থাকলে বাঁহাতের বুড়ো আঙুলের (না থাকলে ডানহাতের বুড়ো আঙুলের, তাও না থাকলে বাঁ/না থাকলে ডান পায়ের বুড়ো আঙুলের, মাপ চওড়ায় ৩, লম্বায় ৩ সেমি) ছাপও স্ক্যান করে রাখতে হবে।  অনলাইন আবেদন করার সময় ছবি ও স্বাক্ষর নির্দিষ্ট স্থানে আপলোড করতে হবে।

অনলাইন আবেদন করা যাবে ১৯ নভেম্বর ২০১৮ বিকাল ৫টা পর্যন্ত। দরখাস্তে উল্লেখের জন্য প্রার্থীর ক্যাটেগরি, পাশ করা পরীক্ষা, সেই পরীক্ষার বিষয় ইত্যাদির কোড নম্বর সহ অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে, বা সরাসরি এই লিঙ্কে: https://ssc.nic.in/SSCFileServer/PortalManagement/UploadedFiles/notice_steno2018_22102018.pdf পাবেন আমাদের পোর্টালেও সার্চ করে।

প্রসঙ্গত, স্টাফ সিলেকশন কমিশনের পরীক্ষায় কোন অসদুপায়ের কী শাস্তি সেবিষয়ে আমাদের আলোচনা ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে ‘এসএসসির পরীক্ষায় অসদুপায় ১৯ রকম, শাস্তি ৪ রকম’ শিরোনামে, এই লিঙ্কে: http://jibikadishari.co.in/?p=5446

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *