চাণক্য কৌটিল্য

5839
0
chanakya-picture

ভারতীয় ইতিহাসে পাণ্ডিত্য ও জ্ঞানের এক অনন্য মেলবন্ধন হিসেবে চানক্য ( ৩৫০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে- ২৭৫ খ্রিস্টপূর্বাব্দে, মতান্তরে ২৮৩ খ্রিস্টপূর্বাব্দে) সর্বাধিক উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব। প্রাচীন ভারতীয় গুরু ও দার্শনিক হিসেবে সুখ্যাতি অর্জনকারী চাণক্য কৌটিল্য ও বিষ্ণুগুপ্ত নামেও সুপরিচিত। তিনি তক্ষশীলা বিশ্ববিদ্যালয়ের ( পাকিস্তান) অর্থনীতি ও রাষ্ট্রনীতির অধ্যাপক ছিলেন। দীর্ঘদিন চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য্য ও তাঁর পুত্র বিন্দুসারের শিক্ষক ও রাজ উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন।তাঁর জন্মস্থান নিয়ে নানা মতভেদ রয়েছে, একদিকে যেমন পাটলিপুত্রের কুসুমপুরে ( পাটনা) তাঁর জন্ম বলে প্রচলিত আবার অন্যদিকে, মহাবংশ টিকা অনুযায়ী তিনি তক্ষশীলায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন। খুব ছোট বয়সেই বেদ পড়তে শুরু করেন। তিনি বাণিজ্য, সংগ্রাম ও অর্থনীতিতে বিশেষজ্ঞ ছিলেন। তাঁর বিখ্যাত কয়েকটি কাজ হল চাণক্যনীতি, অর্থশাস্ত্র, নীতিশাস্ত্র প্রভতি। একজন শিক্ষক হিসবে তিনি সর্বদা শিক্ষার গুরুত্ব বুঝতেন। তাঁকেই ভারতের প্রথম অর্থনীতিবিদ ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানী মনে করা হয়। তিনি চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য্য প্রধান উপদেষ্টা ছিলেন। মগধের পতন ও মৌর্য্য  সাম্রাজ্যের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভমিকা নিয়েছিলেন। কৌটিল্য ও চন্দ্রগুপ্ত মগধের পতনের জন্য একটি ছোটো বাহিনী তৈরি করেন ও যথেষ্ট সামরিক শক্তি তৈরি করে রাখেন। সেইসময় মৌর্য্য  সাম্রাজ্যকে শক্তিশালী সাম্রাজ্য হিসেবে গড়ে তুলতে চন্দ্রগুপ্তকে বহুবিধ সাহায্য করেছেন। তাঁর রাজনৈতক চিন্তাগুলি তিনি অর্থশাস্ত্রে লিখেছেন। অর্থশাস্ত্রে কৌটিল্যের যে সমস্ত ধারনা প্রতিফলিত হয়েছে তা সম্পূর্ণরূপে বাস্তব ও একেবারেই আবেগজড়িত নয়। অর্থশাস্ত্র রাষ্ট্র ও রাজনীতির একটি ধ্রুপদী। এটি মূলত রাজনীতির নীতি ও কিভাবে রাষ্ট্র কাজ হয় সেই সম্পর্কে লেখা।  তিনি প্রকাশ্যে বিতর্কিত বিষয় যেমন গুপ্তহত্যা, গোপন এজেন্টদের কিভাবে পরিচালনা করতে হয়, কোন সময়ে চুক্তি লঙ্ঘন প্রয়োজন প্রভতি বিষয়ে লিখেছেন। কূটনীতি ও সরকারি প্রশাসন সম্পর্কে কৌটিল্য একটি অগ্রণী ভমিকা নিয়েছেন। আজও ভারতের কূটনীতির দিক থেকে চাণক্যর অর্থশাস্ত্রকে এক নম্বরে রাখা হয়।