চলে গেলেন শৈশবের কিংবদন্তি নারায়ণ দেবনাথ

387
0

বাংলা শিশুসাহিত্যে চিত্রকাহিনিকার হিসেবে নারায়ণ দেবনাথের নাম উল্লেখযোগ্যভাবে থেকে যাবে, যে তিনটি বিশেষ কাহিনি বা চরিত্রের ফটোটাইপের জন্য তার হল ‘ হাঁদাভোঁদা’, ‘ নন্টে ফন্টে ‘ ও বাঁটুল দি গ্রেট’। শুধু তাইই নয়, এ ছাড়াও ক্ষুদে পাঠকদের মন ভরানোর জন্য এঁকেছেন আরো অনেক বিচিত্র চরিত্র কাহিনি‌ । এমনকি তাঁর তৈরি ডিটেকটিভ কাহিনি চিত্র ‘ গোয়েন্দা ব্ল্যাক ডায়মন্ড সিরিজের বা কেল্টু কাহিনি আজও ছোটদের কাছে জনপ্রিয়। শুধু ছোটদের বললে ভুল হবে। আবালবৃদ্ধবনিতাই এইসব কমিক্স কাহিনিতে মুগ্ধ। শুধু কমিকস কাহিনি নয়, গ্রন্থচিত্রেও অনবদ্য অবদান রেখেছিলেন নারায়ণ দেবনাথ। তাঁর প্রতিটা লেখাই নতুন কিন্তু চরিত্রেরা এক। এমন অভাবনীয় নতুন নতুন কাহিনি সৃষ্টি একজন শিল্পীর মহৎ ভাবনাকেই তুলে ধরে‌।

বাংলা শিশুসাহিত্যের ইতিহাসে ‘ হাঁদাভোঁদার ‘ প্রথম প্রকাশ ১৯৬০ এর দশকে। ১১৯৬২ তে হাঁদাভোঁদা, ১৯৬৫ বাঁটুল দি গ্রেট, এবং ১৯৬৯ ‘ ‘নন্টেফন্টে’। গত পঞ্চাশ বছর ধরে কোনো লেখক একই ভাবে জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকতে পারেন তো তিনি নারায়ণ দেবনাথ। ৮০ দশকের শৈশব পেরনো কিশোর কিশোরীদের কাছে অধীর আগ্রহের অপেক্ষা করতে দেখা যেত কবে, শিশু কিশোর জনপ্রিয় পত্রিকা ‘শুকতারা ‘ প্রকাশ পাবে। এমন উপভোগ্য মজাদার কাহিনি নারায়ণ দেবনাথ বছরের পর বছর নিরবচ্ছিন্ন ভাবে জুগিয়ে গেছেন ধারাবাহিক ভাবে। সেই নারায়ণ দেবনাথই ৯৭ বছর বয়সে প্রয়াত হলেন।

হাওড়ার শিবপুরে ১৯২৫ সালে নারায়ণ দেবনাথের জন্ম। বাড়িতে ছিল গয়না তৈরির পরিবেশ। শিশুকাল থেকেই সেই শিল্পের নকশায় হাতেখড়ি। তারপর ধিল্প শিখতে সরকারি আর্ট কলেজে । কিন্তু যুদ্ধের কারণে সাময়িক কলেজ বন্ধ থাকার নারায়ণ বাবুর আর্ট পড়াও বন্ধ হয়ে যায়। এরপর তিনি সরাসরি গ্রাফিক্স কাহিনি চিত্রকর হয়ে ওঠেন। তারপর আর পিছন ফিরে তাকাননি। অনেক আহ্বান এলেও জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত ‘ হাঁদাভোঁদা, নন্টে ফন্ট’ সহ নানা কাহিনি চিত্রে নিমগ্ন থেকেছেন এবং বছরের পর বছর শিশুদের উপযোগী মনোরঞ্জক কাহিনি উপহার দিয়ে গেছেন।। আর এ সবের স্বীকৃতি হিসেবে কেন্দ্রীয় সরকারের ‘পদ্মশ্রী’, রাজ্য সরকারের ‘বঙ্গবিভূষণ’ সহ নানা সম্মানে সম্মানিত হয়েছেন। তাঁর সৃষ্টির আকাশছোঁয়া স্বীকৃতি পেয়েছে ’হাঁদাভোঁদা ‘ , নন্টেফন্টে ও বাঁটুল দি গ্রেট।”

বাংলা ও বাঙালির কাছে তিনি অবিস্মরণীয় কমিক্স সাহিত্যের দিশারী হয়ে থাকবেন। পরবর্তীকালে বিদেশি কমিক্স ‘টিনটিন’ প্রভৃতি জনপ্রিয় হলেও নারায়ণ দেবনাথ অপ্রতিরোধ্য। বইমেলায় দেবসাহিত্য কুটীরের সামনে যে সর্পিল লাইন দেখা যায়, তার অনেকটাই হাঁদা ভোঁদার স্রষ্টার জন্য।

এই কমিক্স সাহিত্যের এক বিশাল জগত আছে। ঊনবিংশ শতকে ১৮৩০ সালে তাঁর সূচনা হয়েছিল ইউরোপের ফ্রান্স সহ বিভিন্ন দেশে। আমেরিকায় বিংশ শতকে শুরু হয়েছিল ‘ দ্য অ্যাডভেঞ্চার অব টিনটিন’ সিরিজ প্রভূত জনপ্রিয় হয়। ঊনবিংশ শতকে হোকুসাইয়ের Manga, বা Rodolphe Toffer এর History du Manseur Cryptogane এর কাহিনি কমিক্স চিত্রের পথ দেখিয়েছিল। ১৮৯৮ সালে R.F Outcault এর দ্য ইয়োলো কিড জনপ্রিয় কমিক্স কাহিনি।

সেই সব সৃষ্টির পথ ধরেই নারায়ণ দেবনাথ বাংলা ও বাঙালির শিশুমনে এক পরম উপভোগ্য অভিনবত্ব এনে দিয়েছিলেন।

তিনি চলে গেলেন। বাঙালি শিশু কৈশোর মনে রেখে গেলেন হাঁদা ভোঁদা, ‘নন্টে ফন্টেদের।

 

ভাস্কর ভট্টাচার্য’