৩৩৯ হাউস সার্জন ও ডেমোনস্ট্রেটর

Doctor in front of a bright background

পণ্ডিত ভগবত দয়াল শর্মা পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস রোহতাকে দুটি পৃথক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ৩৩৯ জন সিনিয়র/ জুনিয়র হাউস সার্জন ও সিনিয়র রেসিডেন্টস/ ডেমোনস্ট্রেটর নিয়োগ করা হবে, ৬ মাসের চুক্তিতে।

যোগ্যতা: সিনিয়র রেসিডেন্ট: ১) এমবিবিএস, ২) সংশ্লিষ্ট বিষয়ে এমডি/ এমএস/ ডিএনবি এবং ৩) স্টেট/ সেন্ট্রাল মেডিকেল রেজিস্ট্রেশন অ্যাক্টে নাম নথিভু্ক্ত।

সিনিয়র রেসিডেন্ট- স্পোর্টস মেডিসিন: এমডি (স্পোর্টস মেডিসিন)/ এমএস (অর্থোপেডিক্স)/ এমডি (ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন)/ ডিএনবি (স্পোর্টস মেডিসিন)/ এমডি (ফিজিওলজি) সঙ্গে স্পোর্টস মেডিসিনে দু বছরের অভিজ্ঞতা।

ডেমোনস্ট্রেটর: ১) এমবিবিএস, ২) স্টেট/ সেন্ট্রাল মেডিকেল রেজিস্ট্রেশন অ্যাক্টের অধীন নাম নথিভুক্ত থাকতে হবে। পোস্ট গ্র্যাজুয়েট প্রার্থীরা অগ্রাধিকার পাবেন। অ্যানাটমি, বায়োকেমিস্ট্রি, ফিজিওলজি, ফার্মাকোলজি, এমএসসি (মেডিকেল) যোগ্যতার প্রার্থীরাও আবেদন করতে পারবেন।

সিনিয়র জুনিয়র হাউস সার্জন: ১) এমবিবিএস সঙ্গে ২) মেডিকেল কাউন্সিল অব ইন্ডিয়া বা স্টেট মেডিকেল কাউন্সিল থেকে স্থায়ী রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট।

বয়সসীমা: সিনিয়র রেসিডেন্ট/ ডেমোনস্ট্রেটর পদের ক্ষেত্রে বয়স হতে হবে ২২-৪০ বছরের মধ্যে। সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

আবেদনের পদ্ধতি: www.uhsr.ac.in এবং www.pgimsrohtak.nic.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। সিনিয়র রেসিডেন্ট/ ডেমোনস্ট্রেটর পদের ক্ষেত্রে পূরণ করা আবেদনপত্র সহ যাবতীয় নথি পাঠাতে হবে ‘The O/O Deputy Registrar, Rectt. & Estt. Branch, Pt B D Sharma UHS, Rohtak’ ঠিকানায়। পূরণ করা আবেদনপত্র পৌঁছতে হবে আগামী ১২ ডিসেম্বর বিকাল ৫টার মধ্যে। সিনিয়র/ জুনিয়র হাউস সার্জেনের ক্ষেত্রে এসব পৌঁছতে হবে আগামী  ১৬ ডিসেম্বর বিকাল ৫টার মধ্যে। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

 

 

 

গ্রামীণ ডাকসেবকের ৫৭৭৮ পদে এবার মাদ্রাসা উত্তীর্ণদের জন্য অনলাইন আবেদন শুরু

GDS, Postal

ভারতীয় ডাক বিভাগে গ্রামীণ ডাকসেবক নিয়োগের প্রক্রিয়া পশ্চিমবঙ্গ সার্কেলে দীর্ঘকাল বন্ধ থাকার পর অনলাইন আবেদন আবার চালু হল ৫ থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত। তবে এবার শুধু মাদ্রাসা বোর্ড থেকে পাশ করা প্রার্থীদের জন্য। ২০১৮-র ৫ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া প্রথম দফার (বিজ্ঞপ্তি নম্বর RECTT./R-100/ONLINE/GDS/VOL-VI DATED 05.04.20) নিয়োগের (সাইকেল-১) সূত্রে মামলা জনিত কারণে আটকে থাকার পর (মামলাকারীদের অভিযোগ, ভারত সরকারের বিভিন্ন বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী মাদ্রাসা পর্ষদের দশম শ্রেণি উত্তীর্ণ যোগ্যতা অন্যান্য পর্ষদের দশম শ্রেণি উত্তীর্ণের সমতুল বলে গণ্য করা হয়। তাহলে কেন ডাক বিভাগে তা গ্রাহ্য হবে না?)। উচ্চ আদালতের নির্দেশ মোতাবেক পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদের দশম শ্রেণির পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ছাত্র-ছাত্রীদের আবেদন করার যোগ্য বিবেচনা করে ১০ দিনের জন্য তাঁদের আবেদন করার সুযোগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, সেইমতো শুধু তাঁদের অনলাইন আবেদনের সুযোগ দিতেই এই বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হল। সাইকেল-১-এর মোট শূন্যপদ ৫৭৭৮টি।

যোগ্যতা: আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা হল আবশ্যিক বা ঐচ্ছিক বিষয় হিসাবে ইংরেজি ও অঙ্ক নিয়ে পড়ে, দুটিতেই পাস নম্বর সহ মাধ্যমিকের সমতুল পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা শিক্ষা পাশ, সঙ্গে কোনো সরকারি/বেসরকারি স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে কম্পিউটারের প্রাথমিক শিক্ষার অন্তত ৬০ দিনের কোর্স করার সার্টিফিকেট। যাঁরা দশম, দ্বাদশ বা উচ্চতর ক্লাসে অন্যতম বিষয় হিসাবে কম্পিউটার নিয়ে পড়েছেন তাঁদের এরকম আলাদা করে প্রতিষ্ঠানের সার্টিফিকেট লাগবে না। স্থানীয় ভাষাতেও দখল থাকা দরকার (যেমন পশ্চিমবঙ্গ সার্কেলের জন্য বাংলা/নেপালি/উর্দু/হিন্দি/সাঁওতালি/ওড়িয়া/পাঞ্জাবি, এই সার্কেলেরই আন্দামান-নিকোবরের জন্য হিন্দি, সিকিমের জন্য নেপালি), অন্তত মাধ্যমিকের সমতুল স্তর পর্যন্ত আবশ্যিক/ ঐচ্ছক বিষয় হিসাবে সেই ভাষা পড়ে থাকা দরকার। মাধ্যমিকের চেয়ে উচ্চতর যোগ্যতা থাকলে তার জন্য কোনো বাড়তি সুবিধা পাবেন না, তবে প্রথম সুযোগেই মাধ্যমিকের সমতুল মাদ্রাসাশিক্ষাক্রম পাশ হলে কমপ্লিমেন্টারিতে পাশ যোগ্যতার তুলনায় উচ্চমেধার বলে গণ্য করা হবে। মার্কশিটে নম্বর, গ্রেড দুইই দেওয়া থাকলে কেবল নম্বরের উল্লেখ করতে হবে। শুধু গ্রেড উল্লেখ করলে বাতিল হবে। বাইরের কাজের পদে সাধারণ জিডিএসদের সাইকেল চালাতে জানা দরকার, মোটর সাইকেল বা স্কুটার চালাতে জানলেও সাইকল চালাতে জানেন ধরা হবে। এটি কোনো সরকারি চাকরি নয়, পুরোপুরি জিডিএস সংক্রান্ত আইন মাফিক পরিচালিত। কোনো ইলেক্টিভ অফিসের সঙ্গে যুক্ত থাকলে আবেদন করা যাবে না। অন্য সংস্থা বা এজেন্সির সঙ্গে যুক্ত থাকা-না-থাকা (যাতে এই কাজে প্রভাব পড়তে পারে) ইত্যাদি আরও কিছু বিষয়ে কড়াকড়ি আছে, দরখাস্তের ওয়েবসাইটে জানা যাবে। পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকলে তার জন্য কোনো বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হবে না।

বয়সসীমা: বয়স হতে হবে ৫ এপ্রিল ২০১৮ তারিখে ১৮-৪০ বছর। তপশিলি, ওবিসি ও প্রতিবন্ধী প্রার্থীরা নিয়মানুসারে বয়সের ছাড় পাবেন।

বাসস্থান, আর্থিক সঙ্গতি: যাঁরা গ্রামীণ ডাকসেবক পোস্ট মাস্টার পদের জন্য নির্বাচিত হবেন তাঁদের শাখা ডাকঘরের গ্রামের মধ্যে বাসস্থান হতে হবে, নির্বাচিত হবার ৩০ দিনের মধ্যে বা কাজে যোগদানের আগে। অন্যান্য জিডিএসদেরও বাসস্থান হতে হবে গ্রামীণ ডাকসেবক গ্রামের এলাকার মধ্যে। জিডিএসদের জীবনধারণের উপযুক্ত আর্থিক সঙ্গতিও থাকা দরকার, যাতে কেবলমাত্র সরকারি ভাতার ওপর নির্ভর করতে না হয়। এই মর্মে অঙ্গীকার করতে হবে। নির্বাচিত হলে সিকিউরিটি ডিপোজিটও জমা রাখতে হবে ব্রাঞ্চ পোস্ট মাস্টারদের ২৫০০০ টাকা, অন্যদের ১০০০০ টাকা হারে।

কাজ, ভাতা: আগেই বলেছি, গ্রামীণ ডাক সেবক পর্যায়ে নিয়োগ হবে গ্রামীণ ডাকসেবক ব্রাঞ্চ পোস্টমাস্টার ও সেইসঙ্গে মাল্টি টাস্কিং স্টাফ বা মেল ডেলিভারার/স্ট্যাম্প ভেন্ডার, মেল ক্যারিয়ার/ প্যাকার/ মেলম্যান। দরখাস্তে একজন যে-কোনো সার্কেলে সর্বাধিক ৫টি পর্যন্ত পদ-পছন্দ জানাতে পারেন পরম্পরাক্রমে। এই পদগুলিতে কাজের সময় ন্যূনতম ৪ ঘণ্টা বা ৫ ঘণ্টা। সেই অনুযায়ী ভাতা (টাইম রিলেটেড কন্টিনিউইটি অ্যালাওয়্যান্স, সংক্ষেপে টিআরসিএ) দেওয়া হবে। ভাতার পরিমাণ এবিপিএম/ডাকসেবকদের ন্যূনতম ৪ ঘণ্টা কাজের ক্ষেত্রে ১০০০০-২৪৪৭০ টাকা বা ন্যূনতম ৫ ঘণ্টা কাজের  ক্ষেত্রে ১২০০০-২৯৩৮০ টাকা, ব্রাঞ্চ পোস্ট মাস্টারের ক্ষেত্রে ন্যূনতম ৪ ঘণ্টায় ১২০০০-২৯৩৮০ টাকা, ন্যূনতম ৫ ঘণ্টায় ১৪৫০০-৩৫৪৮০ টাকা।

প্রার্থিবাছাই: প্রার্থী বাছাই হবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে, অনলাইনে আবেদনের সময় দেওয়া প্রার্থীর তথ্যাবলির ভিত্তিতে। কেবল মাধ্যমিকের নম্বরই বিবেচিত হবে, শতকরা হিসাব ধরা হবে চার দশমিক স্থান পর্যন্ত। টাই হলে কিছু বিশেষ ব্যবস্থা। যাঁদের নম্বর, গ্রেড দুইই আছে তাঁরা শুধু নম্বর উল্লেখ করবেন। এভাবে প্রার্থিবাছাইয়ের ফলাফলও যথাসময়ে ওয়েবসাইটে জানা যাবে। নির্বাচিত প্রার্থীদের এসএমএস করেও জানানো হবে।

আবেদনপদ্ধতি: আবেদন করতে হবে কেবলমাত্র অনলাইনে, https://indiapost.gov.in বা http://www.appost.in/gdsonline/Home.aspx ওয়েবসাইটে, আগামী ১৪ ডিসেম্বরের মধ্যে। অফলাইনে বা রাজ্যস্তরে আলাদা করে আবেদন বা যোগাযোগের কোনো ব্যাপার নেই। আবেদনের জন্য রেজিস্ট্রেশন করা যাবে মাত্র একবারই, একাধিক বার রেজিস্ট্রেশন করলে প্রার্থিপদ বাতিল হতে পারে। রেজিস্ট্রেশন নম্বর পেলে তার উল্লেখ করে যে-কোনো সার্কেলে যে-কোনো পদ-পছন্দের জন্য আবেদন করা যাবে, তবে শুধু একটি সাইকেলের জন্য (যেমন এপর্যায়ের নিয়োগ সাইকেল-১)। রেজিস্ট্রেশন নম্বর ভুলে গেলে তা উদ্ধার করতে পারেন ‘ফরগট রেজিস্ট্রেশন’ লিঙ্কের মাধ্যমে।

ফি: আবেদনের ফি প্রতি ৫টি পদের জন্য ১০০ টাকা (মহিলা, তপশিলি ও প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের কোনো ফি দিতে হবে না) রেজিস্ট্রেশন হয়ে গেলে কোনো হেড পোস্ট অফিসে ওই টাকা জমা দিতে হবে রেজিস্ট্রেশন নম্বর উল্লেখ করে (রাজ্যওয়াড়ি হেড পোস্ট অফিসের তালিকা পাবেন www.appost.in/gdsonline/MasterPDF/HO_List.pdf ওয়েবসাইটে) তারপর অ্যাপ্লাই অনলাইন লিঙ্কে ফিরে নিজের পছন্দের রাজ্য/সার্কেলে এক সার্কেলে ৫টি এবং সব সার্কেলে মিলিয়ে ২০টি শূন্যপদের জন্য আবেদন করা যাবে। ওই রেজিস্ট্রেশন নম্বর ও উপযুক্ত ফি (এক সার্কেলে সর্বাধিক ৫টি পদের জন্য ১০০ টাকা হিসাবে) পেমেন্ট নম্বর উল্লেখ করে আবেদন করা যাবে। দরখাস্তে মাধ্যমিক সার্টিফিকেটের নম্বর উল্লেখ করতে হবে (কোন বোর্ডের সার্টিফিকেটে কোথায় কী নম্বর লেখা থাকে তা দরকার হলে স্কুল থেকে বুঝে নিতে পারেন, তবে রেজিস্ট্রেশন নম্বর বা রোল নম্বর চেনা যাবে অ্যাডমিট কার্ডের সঙ্গে মিলিয়ে নিলে, সার্টিফিকেটে এর বাইরে কোনো একটি নম্বর থাকলে সেটিই সার্টিফিকেট নম্বর, একাধিক নম্বর থাকলে কোনটি সার্টিফিকেট নম্বর তা জেনে নিতে পারেন স্কুল থেকে) একবার প্রমাণপত্রাদি (মাধ্যমিক মার্কস মেমো/ সার্টিফিকেট, কাস্ট/কমিউনিটি সার্টিফিকেট, ফটো, সই এসবের জেপিজি/ জেপেগ ফর্ম্যাটে স্ক্যান করা কপি (স্ক্যান করতে হবে সমস্ত সার্টিফিকেট/মার্কশিটের ক্ষেত্রে প্রতিটি এ-৪ মাপের কাগজে ২০০ কেবির মধ্যে, মাধ্যমিক পরীক্ষা দুইয়ের বেশি বারের চেষ্টায় পাশ হলে অতিরিক্ত মার্কশিট সর্বাধিক ৬০০ কেবি, ফটো ও সই প্রতিটি বাঞ্ছনীয়ত ২০০x২৩০ পিক্সেলে কিন্তু ৫০ কেবির মধ্যে) আপলোড করা হয়ে গেলে পরে আর কোনো সার্কেলে বা আর কোনো পদ-পছন্দের ক্ষেত্রে তা আপলোড করতে হবে না, স্বয়ংক্রিয় ভাবে সার্ভার থেকেই তা ব্যবহৃত হবে। তবে মাধ্যমিকের নম্বর ইত্যাদির কোনো ভুল তথ্য বা ভুল/ প্রমাণপত্র আপলোড হলে দরখাস্ত বাতিল হবার সম্ভাবনা থাকবে। সব প্রমাণপত্র খুঁটিয়ে যাচাই হবে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে।

কোন পোস্টাল ডিভিশনে কোন হেড পোস্ট অফিসের অধীনে কোন সাব অফিস, ব্রাঞ্চ অফিসে কোন পদে নিয়োগ, সংরক্ষণ আছে কিনা, কত শূন্যপদ, ভাতার হার কী, নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ কে এসব জানা যাবে ওপরের ওয়েবসাইটেই (http://www.appost.in/gdsonline/), দরখাস্ত করার সময়।

 

 

 

 

GDS, Postal

রাজ্যে ২৪ ভিকল ইনস্পেক্টর ও ওয়েলফেয়ার অফিসার

PSC Office

রাজ্যে দুটি পৃথক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ২৪জন মোটর ভিকল ইনস্পেক্টর ও ওয়েলফেয়ার অফিসার নিয়োগ করা হবে। প্রার্থী বাছাই করবে ওয়েস্ট বেঙ্গল পাবলিক সার্ভিস কমিশন।

১) বিজ্ঞপ্তি নম্বর: ৩১/২০১৯। পদের নাম, দপ্তর, শূন্যপদ, বেতন, যোগ্যতা ও বয়সসীমা: রাজ্যের কারেকশনাল হোমে ওয়েলফেয়ার অফিসার, নিয়োগ হবে রাজ্যের কারেকশনাল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন দপ্তরে। শূন্যপদ ৫ (অসংরক্ষিত ৩, তপশিলি জাতি ১, শারীরিক প্রতিবন্ধী ১)। পে ব্যান্ড ফোর অনুযায়ী মূল বেতন ৯০০০-৪০৫০০ টাকা, গ্রেড পে ৪৪০০ টাকা। সোশ্যাল ওয়ার্কে ডিগ্রি বা সমতুল অথবা যে-কোনো বিষয়ে ডিগ্রি সঙ্গে সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার কাজে বা সম্পৃক্ত বিষয়ে ডিপ্লোমা বা সার্টিফিকেট। বাঞ্ছনীয়: সাইকোলজিতে ডিগ্রি, বাংলা ভাষার দক্ষতা। ১ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখের হিসেবে বয়সের ঊর্ধ্বসীমা ৩৬ বছর, পশ্চিমবঙ্গের সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

২) বিজ্ঞপ্তি নম্বর: ৩২/২০১৯। পদের নাম, দপ্তর, শূন্যপদ, বেতন, যোগ্যতা ও বয়সসীমা: মোটর ভিকল ইনস্পেক্টর (নন-টেকনিক্যাল), নিয়োগ হবে রাজ্যের পরিবহণ দপ্তরে। শূন্যপদ ১৯ (অসংরক্ষিত ৯, তপশিলি জাতি ৫, ওবিসি বি ২, ওবিসি এ ১, মেধাবী ক্রীড়াবিদ ১, তপশিলি উপজাতি ১)। পে ব্যান্ড থ্রি অনুযায়ী মূল বেতন ৭১০০-৩৭৬০০ টাকা, গ্রেড পে ৩৯০০ টাকা। ব্যাচেলর ডিগ্রি সঙ্গে বাংলা লিখতে, পড়তে ও বলতে জানতে হবে (নেপালি ভাষীদের ক্ষেত্রে বাংলা ভাষা জানার শর্ত প্রযোজ্য নয়)। ১ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখের হিসেবে বয়স হতে হবে ১৮-৩৯ বছরের মধ্যে, রাজ্যের সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন। শারীরিক মাপজোক: উচ্চতা ১৭০ সেন্টিমিটার, বুকের ছাতির ন্যূনতম মাপ ৮৬ সেন্টিমিটার, ৫ সেন্টিমিটার পর্যন্ত ফোলানোর ক্ষমতা। গোর্খা, গাড়োয়াল, রাজবংশী, পার্বত্য এলাকার বাসিন্দা ও তপশিলি উপজাতি প্রার্থীদের জন্য উচ্চতা ১৬০ সেন্টিমিটার, বুকের ছাতির মাপ ৮১ সেন্টিমিটার, ৫ সেন্টিমিটার পর্যন্ত ফোলানোর ক্ষমতা। সবক্ষেত্রেই উচ্চতা ও শারীরিক গঠনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ওজন হতে হবে।

আবেদনের ফি: ১৬০ টাকা, বাড়তি ব্যাঙ্ক চার্জ ও জিএসটি। পশ্চিমবঙ্গের তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ফি দিতে হবে না। অনলাইন ডেবিট কার্ড/ ক্রেডিট কার্ড/ নেট ব্যাঙ্কিংয় এবং ডাউনলোড করা চালানের মাধ্যমে অফলাইনে ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার যে-কোনো শাখায় ফি দেওয়া যাবে।

ওয়েলফেয়ার অফিসার পদের অনলাইন আবেদনের ফি দেওয়া যাবে আগামী ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত। চালান ডাউনলোড করা যাবে আগামী ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত এবং ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ায় চালানের মাধ্যমে ফি দেওয়া যাবে ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত, ব্যাঙ্কের কাজের সময়সীমার মধ্যে।

মোটর ভিকল ইনস্পেক্টর পদের অনলাইন আবেদনের ফি দেওয়া যাবে আগামী ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত। চালান ডাউনলোড করা যাবে আগামী ৩০ ডিসেম্বর আর ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার যে-কোনো শাখায় ফি দেওয়া যাবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর ব্যাঙ্কের কাজের সময়সীমার মধ্যে।

আবেদনের পদ্ধতি: http://pscwbapplication.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। ওয়েলফেয়ার অফিসার পদের ক্ষেত্রে আবেদন করা যাবে আগামী ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

মোটর ভিকল ইনস্পেক্টর পদের অনলাইন আবেদন করা যাবে আগামী ১১ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

http://pscwbapplication.in/pdf19/PUBLIC_SERVICE_COMSION_WEST_0412.pdf

লিঙ্কে ওয়েলফেয়ার অফিসার পদের বিজ্ঞপ্তি দেখা যাবে।

http://pscwbapplication.in/pdf19/PUBLIC_SERVICE_COMMISSION_WEST_BENGAL_04dec.pdf লিঙ্কে মোটর ভিকল ইনস্পেক্টর পদের বিজ্ঞপ্তি দেখা যাবে।

 

 

 

রাজ্যের সরকারি ডিগ্রি কলেজগুলিতে ৩৮ প্রিন্সিপাল

Principal, PSC Exam

পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে সরকারি ডিগ্রি কলেজগুলিতে প্রিন্সিপাল নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। বিজ্ঞপ্তি নম্বর– 30/2019.

শূন্যপদ  ৩৮টি।  এর মধ্যে ১১টি এসসি, ৩টি এসটি, ৪টি ওবিসি-এ, ৩ টি ওবিসি-বি এবং ২টি পিডব্লুডির জন্য সংরক্ষিত।

শিক্ষাগত যোগ্যতা : স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৫৫% নম্বর সহ মাস্টার ডিগ্রি, সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি, এবং শিক্ষকতা/গবেষণা/প্রশাসনিক ক্ষেত্রে প্রফেসর/অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর হিসাবে ১৫ বছরের কাজের অভিজ্ঞতা লাগবে। এর পাশাপাশি পিবিএএস অনুযায়ী এপিআইতে নূন্যতম স্কোর থাকা প্রয়োজন।

বয়সসীমা: ১ জানুয়ারি, ২০১৯ অনুযায়ী ৪০ থেকে ৫৫ বছর।

বেতনক্রম: ৩৭৪০০-৬৭০০০ + গ্রেড পে ১০০০০ টাকা।

আবেদন ফি: এই পদের জন্য আবেদন ফি লাগবে ২৫০ টাকা। এর সঙ্গে কনভেনিয়েন্স ফি বা সার্ভিস চার্জ নেওয়া হবে।

আবেদন: আগামী ২৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন গ্রহণ হবে। অনলাইনে ২৪ তারিখ পর্যন্তই আবেদন ফি নেওয়া হবে। অফলাইনে ইউবিআইয়ের মাধ্যমে আবেদন ফি জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯।

অনলাইন আবেদন লিঙ্ক: www.pscwbapplication.in

সংরক্ষিত পদগুলির জন্য যোগ্যতা, বয়সসীমা ইত্যদিতে নিয়মানুযায়ী ছাড় রয়েছে। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে বিজ্ঞপ্তিতে, এই লিঙ্কে: https://www.pscwbonline.gov.in/docs/2726391

 

 

 

 

Principal, PSC Exam

কেন্দ্রীয় সরকারের কয়েক হাজার ক্লার্ক, জুনিঃ অ্যাসিস্ট্যান্ট, পোস্টাল/সর্টিং অ্যাসিঃ, ডেটা এন্ট্রি অপারেটর

SSC, SSC Constable,

পশ্চিমবঙ্গ সহ দেশের সমস্ত রাজ্যে ও দিল্লিতে অবস্থিত কেন্দ্রীয় সরকারের অফিসগুলিতে লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক/ জুনিয়র সেক্রেটারিয়েট অ্যাসিস্ট্যান্ট, পোস্টাল অ্যাসিস্ট্যান্ট/ সর্টিং অ্যাসিস্ট্যান্ট, ডেটা এন্ট্রি অপারেটর (ডিইও) ও ডেটা এন্ট্রি অপারেটর গ্রেড এ-র কয়েকহাজার সম্ভাব্য শূন্যপদে নিয়োগের জন্য দরখাস্ত নেওয়া হচ্ছে। শূন্যপদ সংগ্রহের কাজ চলছে, তবে শূন্যপদ হাজারছয়েক হতে পারে বলে তথ্যাভিজ্ঞ মহলের ধারণা। প্রার্থী বাছাই করবে স্টাফ সিলেকশন কমিশন, কম্বাইন্ড হায়ার সেকেন্ডারি লেভেল (১০+২) পরীক্ষা, ২০১৯-র মাধ্যমে। F.NO 3/6/2019-P&P-I (Vol.1).

বেতনক্রম: মূল বেতন লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক/ জুনিয়র সেক্রেটারিয়েট অ্যাসিস্ট্যান্ট পদের ক্ষেত্রে পে লেভেল টু অনুযায়ী ১৯৯০০-৬৩২০০ টাকা। বাকি পদগুলির ক্ষেত্রে পে লেভেল ফোর অনুযায়ী ২৫৫০০-৮১১০০ টাকা। সবক্ষেত্রেই মূল বেতনের সঙ্গে রয়েছে অন্যান্য ভাতা।

বয়সসীমা: ১ জানুয়ারি ২০২০ তারিখের হিসেবে বয়স হতে হবে ১৮-২৭ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ২ জানুয়ারি ১৯৯৩ থেকে ১ জানুয়ারি ২০০২)। সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা (বিধবা/বিবাহবিচ্ছিন্না/আইনত পতিসঙ্গ বিচ্ছিন্না সহ) নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

যোগ্যতা: লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক/ জুনিয়র সেক্রেটারিয়েট অ্যাসিস্ট্যান্ট, পোস্টাল অ্যাসিস্ট্যান্ট/ সর্টিং অ্যাসিস্ট্যান্ট, ডেটা এন্ট্রি অপারেটর (ডিইও-সিঅ্যান্ডএজি বাদে) ও ডেটা এন্ট্রি অপারেটর গ্রেড এ পদের ক্ষেত্রে যে-কোনো শাখায় দ্বাদশ শ্রেণি উত্তীর্ণ বা সমতুল। শুধুমাত্র ডেটা এন্ট্রি অপারেটর (ডিইও)— অফিস অব কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল অব ইন্ডিয়া (সিঅ্যান্ডএজি)-র ক্ষেত্রে গণিত সহ বিজ্ঞান শাখায় দ্বাদশ শ্রেণি উত্তীর্ণ হতে হবে। শিক্ষগত যোগ্যতা সম্পূর্ণ হতে হবে ১ জানুয়ারি ২০২০ তারিখের মধ্যে। যে এলাকায় নিয়োগ হবে সেই এলাকার স্থানীয় ভাষায় দক্ষতা থাকতে হবে, তা না হলে চাকরির স্থায়িত্ব আটকে যেতে পারে।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: লিখিত পরীক্ষা ও টাইপিং টেস্ট/ স্কিল টেস্টের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। লিখিত পরীক্ষা হবে দুটি পর্যায়ে। টিয়ার ওয়ান ও টিয়ার টু। লিখিত পরীক্ষায় সফল হলে টিয়ার থ্রি। টিয়ার ওয়ানে থাকবে জেনারেল ইন্টেলিজেন্স (২৫টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ (২৫টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর), কোয়ান্টিটেটিভ অ্যাপ্টিটিউড (২৫টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর) ও জেনারেল অ্যাওয়্যারনেস (২৫টি প্রশ্ন, ৫০ নম্বর)। পরীক্ষার সময় ৬০ মিনিট। অবজেক্টিভ টাইপের প্রশ্ন হবে। ইংরেজি বাদে অন্যান্য বিষয়ের প্রশ্ন হবে ইংরেজি ও হিন্দিতে। নেগেটিভ মার্কিং আছে। এক-একটি ভুল উত্তরের জন্য ০.৫০ নম্বর করে কাটা হবে। টিয়ার টু ১০০ নম্বরের, ডেসক্রিপটিভ। টিয়ার থ্রি-তে স্কিল টেস্ট/ টাইপিং টেস্ট থাকবে, তাতে সফল হতেই হবে, যদিও তার কোনো নম্বর মেধাতালিকার জন্য বরাদ্দ হবে না। পরীক্ষার সিলেবাস সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে নিচের ওয়েবসাইট থেকে।

স্কিল টেস্ট (ডেটা এন্ট্রি অপারেটর পদের জন্য): এক ঘণ্টায় কম্পিউটারে ৮০০০ কি-ডিপ্রেশন স্পিড তুলতে হবে। এই পরীক্ষার জন্য ইংরেজিতে একটি রানিং স্ক্রিপ্ট ম্যাটার দেওয়া হবে। এই ছাপানো ম্যাটারে ২০০০-২২০০ স্ট্রোকের কম্পোজ থাকবে। প্রার্থীদের সেই মতোই টাইপ করতে হবে। সময় দেওয়া হবে ১৫ মিনিট। কতটা নির্ভুল হল সেটাও দেখা হবে।

টাইপিং টেস্ট (লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক/ জুনিয়র সেক্রেটারিয়েট অ্যাসিস্ট্যান্ট, পোস্টাল অ্যাসিস্ট্যান্ট/ সর্টিং অ্যাসস্ট্যিান্ট): কম্পিউটারে টাইপিং টেস্ট নেওয়া হবে। ইংরেজি টাইপিং-এ মিনিটে ৩৫ বা হিন্দি টাইপিং-এ ৩০ স্পিড (অর্থাৎ ইংরেজিতে ঘণ্টায় ১০৫০০ এবং হিন্দিতে ৯০০০ কি-ডিপ্রেশন) থাকা চাই। ১০ মিনিটের পরীক্ষা। দৃষ্টি প্রতিবন্ধীরা ৩০ মিনিট সময় পাবেন।

পরীক্ষাকেন্দ্র: পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের পরীক্ষাকেন্দ্র এবং ব্র্যাকেটে কোড নম্বর (পূর্বাঞ্চলের আঞ্চলিক দপ্তরের ঠিকানা Regional Director (ER), Staff Selection Commission, 1st MSO Building, (8th Floor), 234/4, Acharya Jagadish Chandra Bose Road, Kolkata, West Bengal-700020, ওয়েবসাইট www.sscer.org): কলকাতা (৪৪১০), শিলিগুড়ি (৪৪১৫), হুগলি (৪৪১৮), পোর্ট ব্লেয়ার (৪৮০২), রাঁচি (৪২০৫), বালাসোর (৪৬০১), বহরমপুর-গঞ্জাম (৪৬০২), ভুবনেশ্বর (৪৬০৪), কটক (৪৬০৫), রৌরকেল্লা (৪৬১০), সম্বলপুর (৪৬০৯), গ্যাংটক (৪০০১), ঢেঙ্কানল (৪৬১১)।

গুয়াহাটি দিশপুর (৫১০৫), ডিব্রুগড় (৫১০২), জোরহাট (৫১০৭), শিলচর (৫১১১), ইটানগর (৫০০১), ইম্ফল (৫৫০১), শিলং (৫৪০১), আইজল (৫৭০১), কোহিমা (৫৩০২), চুড়াচাঁদপুর (৫৫০২), আগরতলা (৫৬০১), উখরুল (৫৫০৩)।

আবেদনের ফি: ১০০ টাকা। এসবিআই চালান/ নেট ব্যাঙ্কিং, যে-কোনো ব্যাঙ্কের ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে আবেদনের ফি দেওয়া যাবে। মহিলা, তপশিলি, শারীরিক প্রতিবন্ধী ও প্রাক্তন সেনাকর্মীদের ফি দিতে হবে না।

আবেদনের পদ্ধতি: http://ssc.nic.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। প্রথমে এককালীন রেজিস্ট্রেশন করতে হবে প্রাথমিক তথ্যাদি, ফটো ইত্যাদি দিয়ে, এই পদ্ধতি নিয়ে আমরা ইতিমধ্যে আলোচনা করেছি (http://jibikadishari.co.in/?p=6634)। আগে রেজিস্ট্রেশন করা থাকলে আবার তা করা দরকার নেই, আগের রেজিস্ট্রেশন নম্বর ও পাসওয়ার্ড দিয়েই কমসময়ের মধ্যে সরাসরি আবেদন করা যাবে। রেজিস্টড়েশনের পর অনলাইন আবেদন করা যাবে আগামী ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত।

শিক্ষাগত যোগ্যতার উল্লেখ দরখাস্তে করতে হবে এইসব কোড নম্বরে: ইন্টারমিডিয়েট/ উচ্চ মাধ্যমিক বা সমতুল পাশ হলে কোড নম্বর (০২), ডিপ্লোমা (০৪), বিএ (০৫), বিএ অনার্স (০৬), বিকম (০৭), বিকম অনার্স (০৮), বিএসসি (০৯), বিএসসি অনার্স (১০), বিএড (১১), এলএলবি (১২), বিই (১৩), বিটেক (১৪), বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার (১৬), বিসিএ (১৭), বিবিএ (১৮), গ্র্যাজুয়েশন ইস্যুড বাই ডিফেন্স ইন্ডিয়ান আর্মি, এয়ার ফোর্স ও নেভি (১৯), বিলিব (২০), বি ফার্ম (২১), আইসিডব্লুএ (২২), সিএ (২৩), পিজি ডিপ্লোমা (২৪), এমএ (২৫), এমকম (২৬), এমএসসি (২৭), এমএড (২৮), এলএলএম (২৯), এমই (৩০), এমটেক (৩১), এমএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং (৩২), এমসিএ (৩৩), এমবিএ (৩৪), কোম্পানি সেক্রেটারি (৩৯), অন্যান্য (৩৫)।

তপশিলি প্রভৃতি প্রার্থীদের সংরক্ষণের সুবিধার জন্য কোড নম্বর: তপশিলি (০১), ওবিসি (০২), শারীরিক প্রতিবন্ধী (০৩), শারীরিক প্রতিবন্ধী+ওবিসি (০৪), শারীরিক প্রতিবন্ধী+তপশিলি (০৫), প্রাক্তন সেনাকর্মী (০৬), বিধবা/ ডিভোর্সি/ আইনত পতিসঙ্গবিচ্ছিন্না মহিলারা আবার বিয়ে না করে থাকলে (১২), বিধবা/ ডিভোর্সি/ আইনত পতিসঙ্গবিচ্ছিন্না মহিলারা আবার বিয়ে না করে থাকলে+ তপশিলি (১৩)।

কলকাতা মেট্রোরেলে ১২৩ অ্যাপ্রেন্টিস

কলকাতা মেট্রোরেলে ফিটার, ইলেক্ট্রিশিয়ান, মেশিনিস্ট, ওয়েল্ডার ও প্লাম্বার ট্রেডে ১২৩ জন ট্রেড অ্যাপ্রেন্টিস নিয়োগ করা হবে অ্যাপ্রেন্টিস অ্যাক্ট অনুযায়ী। Notice No. 01/20/Metro Railway/Kolkata.

শূন্যপদ: ফিটার: ৭৬ (অসংরক্ষিত ২৯, তপশিলি জাতি ১১, তপশিলি উপজাতি ৬, ওবিসি ২১, শারীরিক প্রতিবন্ধী ৩, প্রাক্তন সেনাকর্মী ৬)। ইলেক্ট্রিশিয়ান: ২৩ (অসংরক্ষিত ১২, তপশিলি জাতি ৩, তপশিলি উপজাতি ২, ওবিসি ৬)। মেশিনিস্ট: ৮ (অসংরক্ষিত ৪, তপশিলি জাতি ১, তপশিলি উপজাতি ১, ওবিসি ২)। ওয়েল্ডার: ৮ (অসংরক্ষিত ৪, তপশিলি জাতি ১, তপশিলি উপজাতি ১, ওবিসি ২)। প্লাম্বার: ৮ (অসংরক্ষিত ৪, তপশিলি জাতি ১, তপশিলি উপজাতি ১, ওবিসি ২)।

যোগ্যতা: ১০+২ পদ্ধতির ম্যাট্রিকুলেশন সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ট্রেডে আইটিআই (এনসিভিটি) সার্টিফিকেট।

বয়সসীমা: ১ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে বয়স হতে হবে ১৫-২৪ বছরের মধ্যে। সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

স্টাইপেন্ড: অ্যাপ্রেন্টিস অ্যাক্টের নিয়ম অনুযায়ী স্টাইপেন্ড দেওয়া হবে।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: মেধাতালিকার ভিত্তিতে প্রার্থী বাছাই করা হবে।

আবেদনের ফি: ১০০ টাকা। ক্রসড ইন্ডিয়ান পোস্টাল অর্ডারের মাধ্যমে ফি দিতে হবে। ক্রসড ইন্ডিয়ান পোস্টাল অর্ডার কাটতে হবে ‘FA&CAO, Metro Railway, Kolkata’-র অনুকূলে, প্রদেয় হবে জিপিও, কলকাতায়। তপশিলি জাতি/ উপজাতি, শারীরিক প্রতিবন্ধী, সংখ্যালঘু ও আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া শ্রেণি ও মহিলা প্রার্থীদের ফি দিতে হবে না।

আবেদনের পদ্ধতি: প্রথমে www.apprenticeship.gov.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অ্যাপ্রেন্টিস হিসেবে নাম নথিভুক্ত করতে হবে। তারপর আবেদন করতে হবে নির্দিষ্ট বয়ানে।

https://mtp.indianrailways.gov.in/uploads/files/1575030175365-Trade%20Apprentice%20for%20the%20year%202020-21.pdf লিঙ্ক থেকে আবেদনের বয়ান ডাউনলোড করা যাবে। এ-ফোর মাপের কাগজে নিজ হাতে বলপয়েন্ট পেন দিয়ে আবেদনপত্র পূরণ করতে হবে। পূরণ করা আবেদনপত্র, ক্রসড ইন্ডিয়ান পোস্টাল অর্ডার, নিজের নাম-ঠিকানা লেখা  ১১×৫ ইঞ্চি মাপের ও প্রতিটিতে ৫ টাকার ডাকমাশুল যুক্ত দুটো খাম, সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট মাপের ছবির দুটি কপি ও অন্যান্য প্রাসঙ্গিক নথি— সব একটি মুখবন্ধ খামে পুরে পাঠাতে হবে ‘Metro Railway, Metro Rail Bhavan, 33/1, J.L Nehru Road, Kolkata 700071’ ঠিকানায়। খামের উপরে লিখতে হবে ‘Application for Metro Railway against Notice No 1/2020/Metro Railway/Kolkata dated 24.22.19’. পূরণ করা আবেদনপত্র পৌঁছতে হবে আগামী ২৩ ডিসেম্বরের মধ্যে। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

কলকাতা মিউনিসিপ্যালিটিতে ৮৯ ইঞ্জিনিয়ার নিয়োগ

Engineer Picture

কলকাতা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনে ৮৯ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার ও সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার নিয়োগ করা হবে। প্রার্থী বাছাই করবে ওয়েস্ট বেঙ্গল মিউনিসিপ্যাল সার্ভিস কমিশন। বিজ্ঞপ্তি নম্বর: ০৮/২০১৯।

শূন্যপদ: অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল): ৩ (অসংরক্ষিত ১, তপশিলি জাতি ১, ওবিসি এ ১)। অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (মেকানিক্যাল): ২ (অসংরক্ষিত ১, তপশিলি জাতি ১)। অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (ইলেক্ট্রিক্যাল): ২ (অসংরক্ষিত ১, তপশিলি জাতি ১)। সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল): ৩৬ (অসংরক্ষিত ১৯, অসংরক্ষিত শারীরিক প্রতিবন্ধী ১, তপশিলি জাতি ৭, তপশিলি উপজাতি ২, ওবিসি এ ৪, ওবিসি বি ৩)। সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (মেকানিক্যাল): ২৩ (অসংরক্ষিত ১২, অসংরক্ষিত শারীরিক প্রতিবন্ধী ১, তপশিলি জাতি ৪, তপশিলি উপজাতি ২, ওবিসি এ ৩, ওবিসি বি ১)। সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (ইলেক্ট্রিক্যাল): ২৩ (অসংরক্ষিত ১২, তপশিলি জাতি ৬, তপশিলি উপজাতি ১, ওবিসি এ ২, ওবিসি বি ২)।

বেতনক্রম: অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল/ মেকানিক্যাল/ ইলেক্ট্রিক্যাল) পদে পে ব্যান্ড ফোর অনুযায়ী মূল বেতন ১৫৬০০-৪২০০০ টাকা, গ্রেড পে ৫৪০০ টাকা। সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল/ মেকানিক্যাল/ ইলেক্ট্রিক্যাল) পদে পে ব্যান্ড ফোর অনুযায়ী মূল বেতন ৯০০০-৪০৫০০ টাকা, গ্রেড পে ৪৪০০ টাকা।

বয়সসীমা: ১ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখের হিসেবে বয়সের ঊর্ধ্বসীমা ৩৭ বছর। পশ্চিমবঙ্গের সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

যোগ্যতা: অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল/ মেকানিক্যাল/ ইলেক্ট্রিক্যাল): সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনে ডিগ্রি বা সমতুল। এক বছরের অভিজ্ঞতা ও কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনে ‘ও’ লেভেল পাশ করে থাকা বাঞ্ছনীয়।

সাব অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল/ মেকানিক্যাল/ ইলেক্ট্রিক্যাল): স্টেট কাউন্সিল ফর ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনিক্যাল এডুকেশন থেকে সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনে ডিপ্লোমা বা সমতুল। মিউনিসিপ্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং কাজে এক বছরের অভিজ্ঞতা থাকা বাঞ্ছনীয়। উচ্চতর যোগ্যতার প্রার্থীরাও আবেদন করতে পারবেন।

আবেদেনর ফি: ২০০ টাকা (১৫০ টাকা আবেদনের ফি+৫০ টাকা প্রসেসিং ফি)। পশ্চিমবঙ্গের তপশিলি জাতি/ উপজাতি প্রার্থীদের আবেদনের ফি দিতে হবে না, তাঁদের শুধুমাত্র প্রসেসিং ফি বাবদ ৫০ টাকা দিতে হবে। সবক্ষেত্রেই ব্যাঙ্ক চার্জ বাবদ বাড়তি ২০ টাকা লাগবে।

আবেদনের পদ্ধতি: www.mscwb.org ওয়েবাসইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করা যাবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। https://www.mscwb.org/home/download/ODl4dWYxdUM2azBsTjg1RUJuZDNRU3FoZi9hTjVaclMwaS9TSVNsemIzYTB6bENWWjkxb0FMTmwvMU53dXBGc1VFYlZIa0tUcDJITU8vNHp4MjR3cXBTeGRlMUpSekwyL0lpSEhZVDQwM2trOGg4SHQzMEdGZ0NvdHlrS1lqTGg= লিঙ্কে গিয়ে বিজ্ঞপ্তিটি দেখতে পারবেন। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্যও জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

 

 

 

এয়ার ইন্ডিয়ায় ৪৬ কাস্টমার এজেন্ট, হ্যান্ডিম্যান

air-india-technician-picture

এয়ার ইন্ডিয়ার অধীন এয়ার ইন্ডিয়া এয়ার ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসেস লিমিটেড-এ ৪৬ জন কাস্টমার এজেন্ট, হ্যান্ডিম্যান/ হ্যান্ডিওম্যান, র‍্যাম্প সার্ভিস এজেন্ট ও ইউটিলিটি এজেন্ট-কাম-র‍্যাম্প ড্রাইভার নিয়োগ করা হবে, তিন বছরের চুক্তিতে। কাজ হবে তিরুচিরাপল্লি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে।

বয়সসীমা: ১ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখের হিসেবে বয়সের ঊর্ধ্বসীমা ২৮ বছর। সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

যোগ্যতা: কাস্টমার এজেন্ট: যে-কোনো শাখার গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি, সঙ্গে কম্পিউটার চালানোর দক্ষতা থাকা দরকার। পোস্টগ্র্যাজুয়েট যোগ্যতা, আইএটিএ-ইউএফটি বা আইএটিএএফআইএটিএএ বা আইএটিএ-ডিজিআর বা আইএটিএ-কার্গো ডিপ্লোমা ও যে-কোনো বিমান বন্দরে বা গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং এজেন্সিতে উড়ানমূল্য, আসনসংরক্ষণ, টিকেটিং, কম্পিউটারে প্যাসেঞ্জার চেক-ইন/কার্গো হ্যান্ডলিংয়ের অভিজ্ঞতা থাকলে অগ্রাধিকার।

হ্যান্ডিম্যান/ হ্যান্ডিওম্যান: দশম শ্রেণি পাশ, ইংরেজি পড়তে ও বুঝতে জানতে হবে এবং সেখানকার স্থানীয় ও হিন্দি ভাষার জ্ঞান থাকতে হবে। এয়ারপোর্ট কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে অগ্রাধিকার।

র‍্যাম্প সার্ভিস এজেন্ট: মেকানিক্যাল/ ইলেক্ট্রিক্যাল/ প্রোডাকশন/ ইলেক্ট্রনিক্স/ অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে তিন বছরের ডিপ্লোমা এবং ভারী যান চালানোর বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স।

ইউটিলিটি এজেন্ট-কাম-র‍্যাম্প ড্রাইভার: দশম শ্রেণি পাশ এবং ভারী যান চালানোর বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স।

সবক্ষেত্রেই শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পূর্ণ হতে হবে ১ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখের মধ্যে।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: ওয়াক-ইন-সিলেকশনের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। ওয়াক-ইন-সিলেকশন হবে আগামী ১৫ ডিসেম্বর সকাল ৯টা থেকে, ঠিকানা: ABBOT MARCEL RC Higher Secondary School, SEMBATTU, Airport (Post) Tiruchirappalli, Tamil Nadu 620007.

আবেদনের ফি: ৫০০ টাকা। ডিমান্ড ড্রাফটের মাধ্যমে ফি দিতে হবে। ডিমান্ড ড্রাফট কাটতে হবে ‘AIR INDIA AIR TRANSPORT SERVICES LTD’–এর অনুকূলে, প্রদেয় হবে মুম্বইতে। ডিমান্ড ড্রাফটের পিছনে প্রার্থীর নাম ও মোবাইল নম্বর লিখে দিতে হবে। তপশিলি জাতি/ উপজাতি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ফি দিতে হবে না।

ওয়াক-ইন-সিলেকশনের দিন পূরণ করা আবেদনপত্র, ড্রাফট ও যাবতীয় প্রমাণপত্রাদির মূল ও জেরক্স সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে।

http://www.airindia.in/writereaddata/Portal/career/853_1_ADVT-FTCTRZDEC2019.pdf লিঙ্কে আবেদনের বয়ান সহ সম্পূর্ণ বিজ্ঞপ্তিটি দেখতে পারবেন। যোগ্যতা ইত্যাদির খুঁটিনাটি শর্ত দেখে নেওয়া দরকার। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে http://www.airindia.in/careers.htm ওয়েবাসইটে।

৪৬৫ ল্যাবরেটরি টেকনিশিয়ান

মেডিকেল সার্ভিসেস রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের মাধ্যমে চেন্নাইতে ১৫০৮ জন ল্যাবরেটরি টেকনিশিয়ান গ্রেড থ্রি নিয়োগ করা হবে, তারমধ্যে অসংরক্ষিত পদ ৪৬৫টি। পশ্চিমবঙ্গ সহ অন্যান্য রাজ্যের প্রার্থীরাও এই ৪৬৫টি অসংরক্ষিত পদের জন্য আবেদন করতে পারবেন। অর্থাৎ তাঁরা সংরক্ষণের কোনো সুবিধা পাবেন না। এই নিয়োগের নোটিফিকেশন নম্বর: 18/MRB/2019.

বয়সসীমা: ১ জুলাই ২০১৯ তারিখের হিসেবে ১৮-৩০ বছরের মধ্যে।

যোগ্যতা: ১) প্লাস-টু পরীক্ষা পাশ সঙ্গে ২) ডিরেক্টর অব মেডিকেল এডুকেশন স্বীকৃত কোনো ইনস্টিটিউট থেকে মেডিকেল ল্যাব টেকনোলজি কোর্সে এক বছরের সময়সীমার সার্টিফিকেট এবং ৩) ভালো দৃষ্টিশক্তি হতে হবে, শারীরিক দিক থেকে পুরোপুরি সুস্থ হতে হবে। শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পূর্ণ হতে হবে ১১ নভেম্বর ২০১৯-এর মধ্যে।

পারিশ্রমিক: প্রতি মাসে ৮০০০ টাকা।

প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি: মাধ্যমিক (২০%)-উচ্চমাধ্যমিক (৩০%) ও ডিপ্লোমা/সার্টিফিকেট (৫০%) পরীক্ষায় পাওয়া নম্বরের মেধাতালিকার ভিত্তিতে প্রার্থী বাছাই করা হবে।

আবেদনের ফি: ৬০০ টাকা। নেট ব্যাঙ্কিং/ ক্রেডিট কার্ড/ ডেবিট কার্ড/ মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে ফি দেওয়া যাবে।

আবেদনের পদ্ধতি: www.mrb.tn.gov.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করা যাবে আগামী ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।

 

আইডিবিআই ব্যাঙ্কে ৫৯ অফিসার

আইডিবিআই ব্যাঙ্কে ৫৯ জন স্পেশ্যালিস্ট ক্যাডার অফিসার নিয়োগ করা হবে। বিজ্ঞপ্তি নম্বর: ৩/২০১৯-২০। নিচের যোগ্যতার যে-কোনো ভারতীয়রা আবেদন করতে পারবেন।

শূন্যপদ: পোস্ট কোড ১: এগ্রিকালচার অফিসার: ৪০। পোস্ট কোড ৩: ফ্রড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট ফ্রড অ্যানালিস্ট (মেকার): ১৪। পোস্ট কোড ৪: ফ্রড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট ইনভেস্টিগেটর (চেকার): ৫।

যোগ্যতা: এগ্রিকালচার অফিসার: ন্যূনতম ৬০ শতাংশ নম্বর নিয়ে এগ্রিকালচার/ হর্টিকালচার/ ভেটেরিনারি সায়েন্স/ ফিশারিজ/ ডেয়ারি টেকনোলজি অ্যান্ড অ্যানিমাল হাজব্যান্ড্রিতে গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি সঙ্গে চার বছরের অভিজ্ঞতা। সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলিতে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট হলে অগ্রাধিকার।

ফ্রড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট– ফ্রড অ্যানালিস্ট (মেকার): ন্যূনতম ৬০ শতাংশ নম্বর নিয়ে কমার্স গ্র্যাজুয়েট। সিএ/ এমবিএ/ সিএআইআইবি/ জেএআইআইবি বাঞ্ছনীয়। শিক্ষাগত যোগ্যতা অর্জনের পর সংশ্লিষ্ট ফিল্ডে অন্তত চার বছরের অভিজ্ঞতা।

ফ্রড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট– ইনভেস্টিগেটর (চেকার): ন্যূনতম ৬০ শতাংশ নম্বর নিয়ে কমার্স গ্র্যাজুয়েট। সিএ/ এমবিএ/ সিএফই/ সিএআইআইবি/ জেএআইআইবি বাঞ্ছনীয়। অন্তত সাত বছরের ব্যাঙ্কিং অভিজ্ঞতা।

বয়সসীমা: এগ্রিকালচার অফিসার ও ফ্রড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট ফ্রড অ্যানালিস্ট মেকার পদে বয়স হতে হবে ২৫-৩৫ বছরের মধ্যে। ফ্রড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট ইনভেস্টিগেটর চেকার পদে বয়স হতে হবে ২৮-৪০ বছরের মধ্যে। সবক্ষেত্রেই বয়স ধরা হবে ১ নভেম্বর ২০১৯ তারিখের হিসাবে এবং সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীরা নিয়ম অনুযায়ী বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ছাড় পাবেন।

আবেদনের ফি: ৭০০ টাকা। তপশিলি জাতি/উপজাতিদের ১৫০ টাকা। ডেবিট কার্ড (রুপে/ ভিসা/ মাস্টার কার্ড/ ম্যাস্ট্রো), ক্রেডিট কার্ড, ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং, আইএমপিএস, ক্যাশ কার্ড/ মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে ফি দেওয়া যাবে।

আবেদনের পদ্ধতি: www.idbibank.in ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। বৈধ ইমেল আইডি ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অনলাইন আবেদন করা যাবে আগামী ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত। https://www.idbibank.in/pdf/careers/Recruitment-of-Specialist-Officers.pdf লিঙ্কে বিজ্ঞপ্তিটি দেখতে পারবেন। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য জানা যাবে উপরোক্ত ওয়েবসাইটে।