fbpx

দূরশিক্ষা নিয়ে আপাতত চিন্তা কমল বিশ্ববিদ্যালয়গুলির

গত সপ্তাহেই জীবিকা দিশারী পোর্টালে আমরা জানিয়েছিলাম, রাজ্যে দূরশিক্ষায় পাঠ্যক্রম চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য ন্যাক-এর র‍্যাঙ্ক দরকার হবে, সেই নির্দেশিকায় আপাতত ২ বছরের ছাড় দিল কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক।

উল্লেখ্য, রাজ্যে যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি দূরশিক্ষায় পাঠ্যক্রম চালায়, যেমন রবীন্দ্রভারতী, বর্ধমান, বিদ্যাসাগর, কল্যাণী ইউনিভার্সিটি— এগুলির জন্য ইউজিসি থেকে নতুন নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছিল যে এই বিশ্ববিদ্যালয়গুলির দূরশিক্ষায় পঠন-পাঠনের জন্য ইউজিসির অনুমোদনের পাশাপাশি ন্যাক-এর ৩.২৬ গ্রেড প্রয়োজন।  যেটা আপাতত এই বিশ্ববিদ্যালয়গুলির কোনোটিরই নেই। স্বাভাবিকভাবেই, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ থেকে শুরু করে ছাত্র-ছাত্রী মহলে ভীতির সঞ্চার হয়।  ন্যাক-এর গ্রেড না পেলে কীভাবে দূরশিক্ষায় পাঠ্যক্রম চালানো যাবে সে বিষয় নিয়ে আশঙ্কা দেখা দেওয়ায় রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে আবেদন জানানো হয়। পার্থ চট্টোপাধ্যায় আগের মাসে দিল্লিতে কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরের কাছে চিঠি পাঠান। কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক থেকে ন্যাক-এর অনুমোদনের বিষয়টি আপাতত ২ বছরের জন্য রোধ করা হয়েছে। তবে পরিকাঠামোগত উন্নয়ন এবং শিক্ষার মানোন্নয়ের লক্ষ্যে পরবর্তীকালে ন্যাক-এর গ্রেড চালু হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তার জন্য ২০২০ সালের মধ্যে ন্যাক-এর কাছে আবেদন করতে হবে এবং নির্দেশিত গ্রেড পাওয়ার জন্যেও ব্যবস্থা করতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *